কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জ সদরে এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলীসহ ১৯ জনের করোনা, ৫ জনই কাটাবাড়িয়ার


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ১৪ জুন ২০২০, রবিবার, ১:১১ | কিশোরগঞ্জ সদর 


কিশোরগঞ্জ জেলায় শনিবার (১৩ জুন) দিবাগত রাতে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে জেলায় নতুন করে ২৪ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ১৯ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ১ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ২ জন ও নিকলী উপজেলায় ২ জন রয়েছেন।

এ নিয়ে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় মোট ১৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৪ জন। এছাড়া সুস্থ হয়েছেন ৩৩ জন।

সর্বশেষ শনিবার (১৩ জুন) দিবাগত রাতে পাওয়া রিপোর্টে এ উপজেলায় একদিনে ১৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

গত ১০ এপ্রিল কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় প্রথম করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হওয়ার পর ৬৫তম দিনে এসে শনাক্তের মোট সংখ্যা এখন ১৪৫ জন।

শুক্রবার (১২ জুন) পর্যন্ত এ উপজেলায় মোট ১২৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। শনিবার (১৩ জুন) পাওয়া সর্বশেষ রিপোর্টে নতুন করে আরো ১৯ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪৫ জনে।

অদ্যাবধি উপজেলা থেকে মোট ২০১৮ টি নমুনা পরীক্ষার জন্য সংগৃহীত হয়েছে। করোনা শনাক্ত হওয়া মোট ১৪৫ জনের মধ্যে চারজন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন।

এছাড়া এখন পর্যন্ত মোট ৩৩ জন সুস্থ হয়েছেন। সুস্থতার হার শতকরা প্রায় ২৩ ভাগ।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া ১৯ জনের মধ্যে ১৩ জন পুরুষ ও ৬ জন নারী। তাদের মধ্যে রয়েছেন এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী একেএম আমিরুজ্জামান।

করোনা শনাক্ত অন্যরা সদরের কাটাবাড়িয়া, শহরের গাইটাল শিক্ষকপল্লী, উকিলপাড়া, বত্রিশ, তারাপাশা, শোলাকিয়া ও হয়বতনগর এলাকার বাসিন্দা।

এর মধ্যে সদরের কাটাবাড়িয়া গ্রামেরই ৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে দুইজন পুরুষ ও তিনজন নারী।

করোনা শনাক্ত হওয়া তিন নারীর বয়স যথাক্রমে ৪২, ৪০ ও ৪০। এছাড়া দুই পুরুষের বয়স যথাক্রমে ২২ ও ৫৫।

কিশোরগঞ্জ সদরে মারা যাওয়া চারজনের মধ্যে কাটাবাড়িয়া গ্রামেরও একজন রয়েছেন। করোনা উপসর্গ নিয়ে কাটাবাড়িয়া গ্রামের মৃত মুসলেহ উদ্দিনের স্ত্রী রাবিয়া আক্তার (৭২) মারা যাওয়ার পর ৫ জুন রাতে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে তার কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছিল।

কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় মৃত অন্য তিনজনের মধ্যে গত ১৭ এপ্রিল কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের বড়বাজার টেনু সাহার গলি এলাকার নিতাই (৬০), গত ২৮ মে সদর উপজেলার লতিবাবাদ ইউনিয়নের অষ্টবর্গ গ্রামের তারা মিয়া (৪৫) এবং সর্বশেষ ৮ জুন শহরের বয়লা এলাকার বাসিন্দা জেলা তাবলীগ জামাতের শূরা সদস্য শহরের বড়বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী আলী আকবর মলাই (৭৫) মারা যান।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর