কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


জহুরুল ইসলাম মেডিক্যালে পিসিআর ল্যাব উদ্বোধন করলেন স্বাস্থ্য সচিব


 বিশেষ প্রতিনিধি | ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, শুক্রবার, ৯:৩৬ | স্বাস্থ্য 


করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার জন্য কিশোরগঞ্জে আরেকটি পিসিআর ল্যাব চালু হয়েছে। শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের  সচিব মো. আবদুল মান্নান বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এ ল্যাবটি উদ্বোধন করেন।

এ উপলক্ষে চিকিৎসকদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় স্বাস্থ্য সচিব মো. আবদুল মান্নান বলেন, করোনার টিকার বিষয়েও বাংলাদেশ কাজ করছে।

তিনি টিকা পাওয়ার বিষয়ে সরকারের নানামুখী পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে বলেন, চীনকে এরই মধ্যে করোনার টিকার ট্রায়ালের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ভারতও আমাদের দেশে ট্রায়াল করতে চায়।

আমাদের কথা হচ্ছে, ট্রায়ালে বাংলাদেশের আপত্তি নেই। তবে যখনই ভ্যাকসিনটি কার্যকর হবে, তাৎক্ষণিকভাবে যেন বাংলাদেশ টিকা পায় তা নিশ্চিত করতে হবে। অগ্রাধিকার দিতে হবে আমাদের।

তিনি বলেন, শুধু চীন বা ভারত নয়, ফ্রান্সের সঙ্গে কথা চলছে আমাদের। রাশিয়ার সঙ্গে কথা হয়েছে। আমেরিকার সঙ্গে কথা বলেছি। যেখানে টিকার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে, সেখানেই যোগাযোগ করা হচ্ছে।

স্বাস্থ্য সচিব মো. আবদুল মান্নান টিকার ব্যাপারে আশাবাদ জানিয়ে বলেন, বিশ্বে বর্তমানে ৯টি কোম্পানি, যারা করোনার টিকা আবিষ্কারের ব্যাপারে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। তাঁদের মধ্যে অন্তত পাঁচটি কোম্পানির সঙ্গে টিকা পাওয়ার ব্যাপারে আমরা সর্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছি।

এমনকি বাংলাদেশে টিকার জন্য কত টাকা লাগতে পারে, তারও একটা হিসাব করে তহবিল করে। সেখানে টাকা রেখে দেওয়া হয়েছে। কাজেই করোনা টিকা পেতে আমাদের কোনো সমস্যা হবে বলে মনে হয় না।

জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপতাল অডিটোরিয়ামে আয়োজিত চিকিৎসকদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব হাসপাতালের পরিচালক প্রফেসর বাহার উদ্দিন ভূঁইয়া।

এতে বক্তৃতা করেন, কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী, মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দ মাহমুদুল আজিজ, ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. চিত্তরঞ্জন দেবনাথ, সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান, বাজিতপুরের ইউএনও দীপ্তিময়ী জামান প্রমুখ।

প্রায় তিন মাস আগে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আরেকটি পিসিআর ল্যাব চালু করা হয়েছিল। জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব চালু হওয়ায় জেলায় মোট দুটি পিসিআর ল্যাবে করোনার নমুনা পরীক্ষা করা যাবে। এখন থেকে করোনা রোগীরা দুটি পিসিআর ল্যাবের সেবা পাবে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর থেকে পুরো জেলায় এ পর্যন্ত দুই হাজার ৭০১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২০ হাজার ৬৩০ জনের। সুস্থ হয়েছে, দুই হাজার ৫২২ জন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর