কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


৭৩০ কোটি টাকার পাকুন্দিয়ায় বাইপাসসহ বিন্নাটি-টোক মহাসড়কের কাজ উদ্বোধন


 সাখাওয়াত হোসেন হৃদয় | ৬ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার, ৫:২৯ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জ-ঢাকা সড়কের পাকুন্দিয়া উপজেলার মধ্য দিয়ে যাওয়া কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বিন্নাটি হতে গাজীপুরের টোক পর্যন্ত প্রায় ২৪ কিলোমিটার সড়ক প্রশস্ত করা হচ্ছে। প্রায় ৭৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটি প্রশস্ত হয়ে মহাসড়কে রূপ নেবে।

এতে রাজধানী ঢাকার সাথে কিশোরগঞ্জ জেলাসহ আশপাশের কয়েকটি জেলার সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের সূচনা হবে।

বুধবার (৬ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় বিন্নাটি হতে পাকুন্দিয়া-মির্জাপুর হয়ে টোক পর্যন্ত মহাসড়কের নির্মাণ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ফলক উন্মোচনের মাধ্যমে এ কাজের উদ্বোধন করেন।

উপজেলার থানাঘাট বাইপাস মোড়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাহিদ হাসানের সভাপতিত্বে এ উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, সড়ক ও জনপথ বিভাগের কিশোরগঞ্জের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মাহফুজ আল নূর সালেহীন, পাকুন্দিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান হারুন অর রশীদ জুয়েল ও পাকুন্দিয়া থানার ওসি মো. সারোয়ার জাহান।

আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম ও যুবলীগ নেতা এনামুল হাসান রাজীবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা প্রকৌশলী মো. হাবিবুল্লাহ, বুরুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা রুবেল, উপজেলা কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি বাবুল আহমেদ, সাবেক পৌর কাউন্সিলর তরীকুল ইসলাম আসাদ, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি নাজমুল হক দেওয়ান, আওয়ামী লীগ নেতা নুরুজ্জামান বাবু, সমাজসেবক আসাদুজ্জামান ডিলার, বিশিষ্ট ঠিকাদার এনামুল হক প্রমুখ।

জানা গেছে, কিশোরগঞ্জ-বিন্নাটি-পাকুন্দিয়া-টোক-ঢাকা সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক। প্রতিদিন কিশোরগঞ্জ জেলাসহ পাশর্^বর্তী ময়মনসিংহ ও নেত্রকোনা জেলার বেশ কয়েকটি উপজেলার মানুষ ঢাকায় যাতায়াতের জন্য এ সড়কটি ব্যবহার করে থাকেন।

বিন্নাটি থেকে টোক পর্যন্ত প্রায় ২৪ কিলোমিটার সড়ক খুবই সরু। তাছাড়া এ সড়কে পাকুন্দিয়া পৌরসদর অবস্থিত হওয়ায় সড়কটিতে প্রায় সময়ই যানজট লেগে থাকে। এতে দুর্ভোগ পোহাতে হয় পথচারী ও যাত্রী সাধারণের।

সড়কটির প্রশস্ততা ১৮ ফুট থেকে ৩২ ফুটে উন্নীত হওয়ার ফলে এবং পাকুন্দিয়া পৌরসদর বাজারে বাইপাস হওয়ার ফলে দুর্ভোগ ঘুচবে এ অঞ্চলের মানুষের।

পাশাপাশি ঢাকায় যাতায়াতের ক্ষেত্রে সময়ও অনেক কম লাগবে। এতে করে যোগাযোগের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের দ্বার উন্মোচিত হবে।

কিশোরগঞ্জ জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ৭২৯ কোটি ৭৯ লাখ টাকা ব্যয়ে কিশোরগঞ্জ(বিন্নাটি)-পাকুন্দিয়া-মির্জাপুর টোক জেলা মহাসড়ক যথাযথমানে উন্নীতকরণ করছে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর।

প্রায় ২৪ কিলোমিটার সড়কটি ১৮ ফুট থেকে ৩২ ফুট পর্যন্ত প্রশস্ত হচ্ছে। সড়কটির পাকুন্দিয়া পৌরসদর বাজারের পাশ দিয়ে দুই কিলোমিটার নতুন সড়ক (বাইপাস) নির্মাণ হবে।

ন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট ইঞ্জিনিয়ারস লিমিটেড ২০২২ সালের ৩০ জুনের মধ্যে সড়কটির নির্মাণ কাজ শেষ করবে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর