কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কুড়িখাই মেলা যেন মাছের মেলা


 মো. রফিকুল হায়দার টিটু, কটিয়াদী | ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বুধবার, ৬:৫২ | সম্পাদকের বাছাই  


কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার মুমুরদিয়া ইউনিয়নের কুড়িখাই নামক স্থানে বার আউলিয়ার অন্যতম হযরত শাহ সামসুদ্দিন সুলতান বুখারী (র.) ওরসে মাছের কদর ধনী গরিব সকল শ্রেণি পেশার মানুষের কাছে সবচেয়ে বেশি। মেলার বড় বড় মাছ শত বছরের ঐতিহ্য আজও বহবান।

এ ওরসে ধর্ম বর্ণের কোন ভেদাভেদ নেই। সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় ওরসে মোমবাতি, আগরবাতি, নগদ অর্থ বা মানতের দক্ষিণা দিয়ে সাধ্যমত একটি মাছ কিনে তবেই বাড়ি ফিরবে ভক্তরা।

ইতোমধ্যে দৃষ্টি আকর্ষণ করা বড় বড় মাছ নিয়ে মেলায় পসরা বসিয়েছে বিক্রেতারা। বিশাল এলাকাজুড়ে বসেছে মাছের পসরা।

সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হওয়া এ মেলা চলবে ১০ দিন।

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সরেজমিনে মেলায় দেখা যায়, বড় বড় মাছের মধ্যে বোয়াল, চিতল, আইড়, রুই, কাতল, সিলবার কার্পস, পাঙ্গাস, মাসুল, বাগাইরসহ নানা ধরণের মাছের চার শতাধিক দোকান বসেছে।

৪০-৫০ হাজার টাকা দামের ২৫-৩০ কেজি ওজনের মাছ সারা বছর চোখে না পড়লেও ওরসের এ মেলাতে দেখা পাওয়া যায়।

আর এসব বড় বড় মাছ দেখতে উৎসুক জনতার ভীড় লেগে যায়। কে কত বড় মাছ কত টাকা দিয়ে নিলো সে বিষয়টিও আলোচনায় মুখরিত থাকে দীর্ঘদিন।

মাছ বিক্রেতারা কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা সুনামগঞ্জ হাওর ও নদী থেকে মেলায় ১০ দিন আগে থেকে এসব মাছ সংগ্রহ করে মেলাতে বিক্রির জন্য নিয়ে আসে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ধনাঢ্য ব্যক্তিসহ সর্বস্তরের লোকজন এই মেলা থেকে মাছ কিনে নিয়ে যায়।

এলাকায় প্রবাদ আছে হযরত শাহ সামসুদ্দিন সুলতান বুখারী (র.) ওরস উপলক্ষে মেলার মাছ খেলে সকল প্রকার বালা মুসিবত দূর হয়।

এছাড়া মেলায় নাগরদোলা, পুতুল নাচ ও সার্কাস সহ রয়েছে বিভিন্ন বিনোদন এবং কাঠ, বাঁশের আসবাবপত্রসহ রকমারী দোকানপাট। মেলাকে কেন্দ্র করে মেলা সংলগ্ন প্রতি বাড়িতেই নতুন জামাই ও আত্মীয় স্বজনদের দাওয়াতের রীতি রয়েছে।

মেলা কমিটির সম্পাদক মঈনুজ্জামান অপু বলেন, শত শত বছর ধরে ঐতিহ্যবাহী মাছের মেলা চলে আসছে। এর মধ্যে আকর্ষণীয় হচ্ছে বোয়াল মাছ।

ভিডিও:




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর