কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে ছিনতাই চক্রের ছুরিকাঘাতে ব্যবসায়ী নিহতের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩


 আফসার হোসেন তূর্জা, ভৈরব | ১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ৪:২৮ | ভৈরব 



কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ছিনতাইকারীদের ছুরিকঘাতে ব্যবসায়ী ফারুক খান নিহত হওয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় রায়হান (১৯), রাসেল (২৫) ও রবিন (১৫) নামে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) রাতে ভৈরব পৌর শহরের চান্দ ভান্ডার দরবার শরীফের সামনে বঙ্গবন্ধু সরণিতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে ভৈরব থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে রায়হান ভৈরব উপজেলার আগানগর ইউনিয়নের জগমোহনপুরের আব্দুল হক মিয়ার ছেলে, রাসেল নরসিংদীর জেলার রায়পুরা উপজেলার নারায়ণপুরের গকুলনগর গ্রামের মৃত লায়েছ মিয়ার ছেলে এবং রবিন (১৫) ভৈরব পৌর শহরের কমলপুর পঞ্চবটি গ্রামের সুজন মিয়ার ভাড়াটিয়া সাহের আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে ফারুক হত্যাকাণ্ডের পর থেকে পুলিশ ভৈরবে সাঁড়াশি অভিযান চালায়। এ অভিযানে সন্দেহভাজন তিনজনকে ভৈরব পৌর শহরের চান্দ ভান্ডার দরবার শরীফের সামনে থেকে আটক করা হয়।

আটকের পর পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে তারা ফারুক হত্যাকাণ্ডের কথা প্রাথমিকভাবে স্বীকার করে।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ঘটনার সময় নিহত ফারুকের সাথে থাকা তার মামাত ভাই আরিফের কাছ থেকে ছিনতাই হওয়া দুটি মোবাইল উদ্ধার করা হয় এবং ছিনতাইকালে ব্যবহৃত একটি সুইচগিয়ার উদ্ধার করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও মামলার বাদী আরিফ জানান, আমি এদের তিনজনের মধ্য থেকে যে ছুরিকাঘাত করেছে, তাকে পুরোপুরি চিনতে পেরেছি। বাকি দুজনকে চিনতে পারলেও মাস্ক পরিহিত ছিল বিধায় কিছুটা আন্দাজ করতে পারছি।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহিন বলেন, ভৈরব হাইওয়ে মহাসড়কের সৈয়দ নজরুল ইসলাম সড়ক সেতুর পাশে একটি হত্যাকাণ্ড ঘটে। এ ঘটনায় শনিবার (১৭ এপ্রিল) ভৈরব থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

মামলা দায়েরের পর পুলিশ তৎপরভাবে আসামি তিনজনকে শনাক্ত করে ধরতে সক্ষম হয়। তারা তিনজনই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত রয়েছে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি সুইচগিয়ার ও দুটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

ছিনতাইকারী তিনজনকে রোববার (১৮ এপ্রিল) দুপুর ১টার দিকে কিশোরগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টার দিকে অসুস্থ মাকে দেখতে ফারুক খান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ থেকে ভৈরব আসার পথে সৈয়দ নজরুল ইসলাম সড়ক সেতু ভৈরব প্রান্তে ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হন। এ হত্যাকাণ্ডে প্রত্যক্ষদর্শী আরিফ বাদী হয়ে শনিবার (১৭ এপ্রিল) থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর