কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


তাড়াইলে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীর সঙ্গে নিষ্ঠুরতা! পিটিয়ে রক্তাক্ত করে পাঠানো হলো হাসপাতালে


 আমিনুল ইসলাম বাবুল | ৬ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৬:২০ | তাড়াইল  



কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে নাঈমুর রহমান খান (৪৩) নামে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী যুবককে নির্মমভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন পাশের বাড়ির রিয়াদ মিয়া এবং ওই বাড়ির লোকজন। আহত বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে স্থানীয় উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত ওই যুবক তাড়াইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। তবে, শারীরিকভাবে হাসপাতালের বিছানায় তিনি যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন।

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নাইমুর রহমান খান উপজেলার রাউতি গ্রামের মৃত মাহবুর রহমান খান এঁর ছেলে।

এ ঘটনায় নাঈমুর রহমান খানের বড় ভাই মো. ইব্রাহিম খান ওরফে তরুন খান বাদি হয়ে তাড়াইল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের  করেছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বুধবার (৫ মে) বিকালে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নাঈমুর রহমান খান তাঁর নিজ বাড়ির সামনে হাঁটাহাটি করছিল। এ সময় নাঈমুর রহমান খানের শারীরিক অবস্থা নিয়ে প্রতিবেশী জহিরুল ইসলাম সবলের ছেলে রিয়াদ মিয়া নাঈমুরকে কটুক্তি করেন এবং উত্যক্ত করে পাগল-পাগল বলে বিরক্ত করছিল।

এক পর্যায়ে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নাঈমুর রহমান খান রিয়াদ মিয়ার দিকে তেড়ে যান।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রিয়াদ মিয়া তার বাবার সামনেই কাঠের বর্গা ও বাঁশ দিয়ে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নাঈমুর রহমান খানকে পিটিয়ে রক্তাক্ত আহত করেন।

ভাইকে আহত করার খবর পেয়ে নাঈমুর রহমান খানের বড় ভাই স্থানীয় পুরুড়া বাজারে ব্যবসায়ী মো. ইব্রাহিম খান ওরফে তরুন খান বাড়ি আসেন।

তিনি ছোট ভাইয়ের শারীরিক অবস্থা দেখে জহিরুল ইসলাম সবল এবং কাঞ্চনের বাড়িতে গিয়ে তার বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ভাইটিকে কেন এমন নিষ্ঠুরভাবে পিটিয়ে আহত করা হলো জিজ্ঞাসা করতে গেলে তখন রিয়াদ মিয়া, রিয়াদ মিয়ার চাচা কাঞ্চন মিয়া, কাঞ্চন মিয়ার ছেলে সানি, মনিসহ নাঈমুর ও মো. ইব্রাহিম খান ওরফে তরুন খানের উপরে লাটিসোটা নিয়ে আক্রমণ করেন। ইফতারের পূর্বে এমন পরিস্থিতিতে চিৎকার শোনে আশে-পাশের লোকজন এসে তাদেরকে নিবৃত্ত করেন।

ঘটনার সংবাদ পেয়ে বুধবার (৫ মে) সন্ধ্যায় তাড়াইল থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) মো. আশরাফুল আলম তালুকদার সরজমিনে ঘটনারস্থল পরিদর্শন করেন।

এ বিষয়ে জানার জন্য রিয়াদ মিয়ার বাড়িতে গিয়ে তাঁকে পাওয়া যায়নি। বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নাঈমুর রহমান খানকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় থানায় অভিযোগ হওয়ার পরে তিনি এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যান বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

তাড়াইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মুজিবুর রহমান বলেন, অভিযোগটি এফআইআর হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে। তাড়াইল থানার মামলা নং- ০৩, তারিখ, ৬ মে ২০২১ খ্রি.। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর