কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কটিয়াদীতে শ্রমিকের মৃত্যু নিয়ে রহস্য! স্ত্রীর দাবি পরিকল্পিত হত্যা


 মো. রফিকুল হায়দার টিটু, কটিয়াদী | ২৩ জুন ২০২১, বুধবার, ৬:০৯ | কটিয়াদী 



কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে আবু বাক্কার (৩৬) নামের এক শ্রমিকের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি নিয়ে সর্বমহলে ব্যাপক আলোচনা চলছে। স্ত্রীর দাবি, তার স্বামীর মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২২ জুন) বিকালে কটিয়াদী পৌরসভার ভোগপাড়া এলাকায় আলতাব উদ্দিনের একটি টিনসেড বাসার টয়েলট থেকে আবু বাক্কারের মৃত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় তার শরীরে কোন কাপড় ছিল না।

নিহত আবু বাক্কার পাশ্ববর্তী পাকুন্দিয়া উপজেলার সুখিয়া ইউনিয়নের টুটারজঙ্গল গ্রামের মৃত তাহের উদ্দিনের ছেলে ও পেশায় একজন পয়:নিস্কাশন শ্রমিক।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আবু বাক্কার দীর্ঘদিন ধরে কটিয়াদী উপজেলায় শ্রমিকের কাজ করতেন। কাজের সুবাধে তিনি ভোগপাড়া এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করতেন।

সোমবার (২১ জুন) দুপুর থেকে আবু বাক্কারের ফোন বন্ধ থাকায় মঙ্গলবার (২২ জুন) দুপুরে স্ত্রী সেবিনা খাতুন তার খোঁজ নিতে পাকুন্দিয়া থেকে কটিয়াদী ভোগপাড়া বাসায় আসেন।

এসময় বসতঘরের দরজা বন্ধ দেখে সন্দেহ হয় স্ত্রী সেবিনার। পরে বাসার মালিককে সাথে নিয়ে ঘরে প্রবেশ করেন। টয়লেটে তার মৃত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন।

সংবাদ পেয়ে কটিয়াদী মডেল থানার ওসি এস এম শাহাদাত হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নিহতের স্ত্রী সেবিনা খাতুন দাবি করেন, আবু বাক্কারকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনেরও দাবি জানান তিনি। প্রয়োজনে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হবেন।

বাড়ির মালিক আলতাব উদ্দিন বলেন, আমার এ বাড়িটিতে সে দীর্ঘদিন যাবত ভাড়া থাকতো। কিভাবে কি হয়েছে তা আমার জানা নাই।

এ ব্যাপারে সিআইডি ময়মনসিংহ অঞ্চলের ক্রাইমসিনের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মৃত ব্যক্তি ও বাসার নানা আলামত সংগ্রহ করেন।

সিআইডির ক্রাইমসিনের পরিদর্শক আবু ইউসুফ বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শনে দেখা যায় বিদ্যুৎ দুর্ঘটনায় এমনটি হতে পারে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে সব কিছুই জানা যাবে।

কটিয়াদী মডেল থানার ওসি এস এম শাহাদাত হোসেন বলেন, 'লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল তৈরির পর ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।'

এদিকে হোসেনপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোনাহর আলী শরীফ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। সে মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর