কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


মিঠামইনে ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২০


 বিজয় কর রতন, মিঠামইন | ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার, ৬:১৬ | মিঠামইন 



কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে অন্তত পাঁচজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদেরকে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নের খলাপাড়া গ্রামের আশরাফ মৌলানা পক্ষ ও পুরান বাড়ী পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মাওলানা আশরাফ আলীর নেতৃত্বাধিন আশরাফ মৌলানা পক্ষের সাথে পুরান বাড়ী পক্ষের বেশ কয়েক মাস ধরে বিরোধ চলে আসছিল।

এ রকম পরিস্থিতিতে মাওলানা আশরাফ আলীর বিরুদ্ধে পুরান বাড়ী পক্ষের ইটালী প্রবাসী জাকন মিয়া ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

এর জের ধরে মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে উভয়পক্ষ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মুখোমুখি সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। প্রায় ৩০ মিনিট ধরে চলা এই সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়।

তাদের মধ্যে গুরুতর আহত পুরান বাড়ী পক্ষের আনোয়ার (৩০), ফরিদ (৩৫) ও লায়েছ (৪৫) কে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং সেলিম (২৫), কাজল (৩০) ও ডালিম (২৮) কে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অন্যদিকে আশরাফ মৌলানা পক্ষের আইনুল (৩২), ওমর আলী (৫০), আবুল ফয়েজ (৬০) ও মনির (৩০) কে মিঠামইন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং হান্নান (৩২) ও তাজুল ইসলাম (৩০) কে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ঘটনার পর পর মিঠামইন থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম ও এসআই গণেশ চন্দ্র শীল বিপুল সংখ্যক পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মিঠামইন থানায় কোন পক্ষই অভিযোগ কিংবা মামলা দায়ের করেনি বলে জানা গেছে।

ঘটনা প্রসঙ্গে মাওলানা আশরাফ আলী বলেন, আমার বিরুদ্ধে ইটালী প্রবাসী জাকন মিয়া মিথ্যা ও মানহানিকর স্ট্যাটাস ফেসবুকে ভাইরাল করে এলাকায় ছড়িয়ে দেয়। এ বিষয়টি পুরান বাড়ীর মুরব্বীদের নিকট অভিযোগ আকারে উত্থাপন করলে তারা উত্তেজিত হয়ে আমাদের লোকজনের উপর হামলা চালায়। এর আগেও মাস তিনেক আগে পুরান বাড়ীর লোকজন আমাদের উপর হামলা চালায়।

তবে পুরান বাড়ী পক্ষের দাবি, আশরাফ মৌলানার লোকজন পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তাদের লোকজনের উপর হামলা চালায়। বাড়িঘরে আক্রমণ করে। এর প্রতিবাদ করতে গেলে এ ঘটনার সূত্রপাত ঘটে।

মিঠামইন থানার ওসি মো. জাকির রব্বানী জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ব্যাপারে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর