কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ায় স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে নাটক সাজিয়ে অবশেষে ধরা শিক্ষক প্রেমিক



 স্টাফ রিপোর্টার | ২২ অক্টোবর ২০২১, শুক্রবার, ৯:২৬ | পাকুন্দিয়া  



কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় স্কুলছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগে বোরহান উদ্দিন (৩২) নামে এক শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রাতে উপজেলার কোদালিয়া বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পাকুন্দিয়া থানা পুলিশ।

পরে শুক্রবার (২২ অক্টোবর) দুপুরে বোরহান উদ্দিনকে আদালতে পাঠানো হয়।

অভিযুক্ত বোরহান উদ্দিন উপজেলার কোদালিয়া এসআই উচ্চ বিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন শিক্ষক ও কোদালিয়া পূর্বপাড়ার মো. আলতাফ উদ্দিনের ছেলে।

পাকুন্দিয়া থানার ওসি মো. সারোয়ার জাহান বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ওসি মো. সারোয়ার জাহান জানান, গত ১২ অক্টোবর স্কুলছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় নিখোঁজ সংক্রান্ত একটি জিডি করা হয়। জিডিতে বলা হয়, গত ১১ অক্টোবর সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর স্কুলছাত্রীর খোঁজ মিলছে না।

এরপর ১৩ অক্টোবর রাতে উপজেলার পুলেরঘাট এলাকা থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন ১৪ অক্টোবর পরিবারের পক্ষ থেকে অজ্ঞাত তিনজনকে আসামি করে পাকুন্দিয়া থানায় অপহরণ মামলা করা হয়।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, স্কুলছাত্রীর মা বিদেশে থাকেন। মেয়েকে অপহরণ করে দুর্বৃত্তরা তার মায়ের কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা করে ব্যর্থ হওয়ায় অপহরণকারীরা মেয়েটিকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।

অপহরণকারীরা মুখোশধারী হওয়ায় তাদের কাউকে চিনতে পারেনি স্কুলছাত্রী।

মামলা রেকর্ডের পর আসামিদের ধরতে পুলিশ তদন্তে নামে।

তদন্তে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা যায়, প্রেমিক বোরহান ফুঁসলিয়ে গত ১১ অক্টোবর সন্ধ্যার দিকে বাড়ি থেকে ওই স্কুলছাত্রীকে নিয়ে যায়।

পরে বোরহান মেয়েটিকে নিয়ে কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের বত্রিশ এলাকার একটি বাসায় ওঠে। সেখানেই তারা ১৩ অক্টোবর সন্ধ্যা পর্যন্ত অবস্থান করে।

এদিকে স্কুলছাত্রীর নিখোঁজ থাকার বিষয়টি জানাজানি হওয়ায় প্রেমিক শিক্ষক বোরহান নিজেকে বাঁচাতে মেয়েটিকে ভয় দেখিয়ে কথিত অপহরণের নাটক সাজায়।

সে মেয়েটিকে পুলেরঘাট এলাকায় রেখে আসে এবং মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা মেয়েটিকে অপহরণ করেছিল- এমন কথা বলার জন্য মেয়েটিকে চাপ দেয়।

শিক্ষক প্রেমিকের ভয়ে স্কুলছাত্রী কথিত অপহরণকাণ্ডের বর্ণনা দেয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মূল ঘটনা আড়াল করতে পারেনি বোরহান।

অপহরণ মামলাটির আসামিদের ধরতে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়, বোরহানই এ ঘটনার মূল হোতা।

গ্রেপ্তারের পর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার আদ্যোপান্ত বর্ণনা দেয় বোরহান।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর