কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জের আঞ্চলিক ভাষার শিল্পিত কারিগর কবি মহীউদ্দিন খান চৌধুরী



 স্টাফ রিপোর্টার | ৪ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ২:৫৮ | রকমারি 



পিরীতির নকশা খ্যাত ৮০ দশকের কবি মহীউদ্দিন খান চৌধুরীকে বলা হয় কিশোরগঞ্জের আঞ্চলিক ভাষার শিল্পিত কারিগর। কিশোরগঞ্জের আঞ্চলিক ভাষায় বিরচিত কাব্যগ্রন্থ ‘পিরীতির নকশা’ ব্যাপক আলোচিত বাংলাদেশের সাহিত্যাঙ্গনে।

‘পিরীতির নকশা’ কাব্যগ্রন্থে কিশোরগঞ্জের সাধারণ মানুষের আঞ্চলিক ভঙ্গি, উপমা ও মুখের বুলিকে কিশোরগঞ্জের নিজস্ব উচ্চারণে, লোকায়ত ঢঙে সাহিত্যে তুলে ধরেছেন কবি মহীউদ্দিন খান চৌধুরী।

‘পিরীতির নকশা’ কিশোরগঞ্জের আঞ্চলিক ভাষা নিয়ে একটি পূর্ণাঙ্গ কাজ। কাল পরিক্রমায় তাঁর এই সাহিত্যকর্ম কিশোরগঞ্জবাসীর কাছে অমূল্যরতন হয়ে উঠবে বলে মনে করছেন বোদ্ধারা।

কবি মহীউদ্দিন খান চৌধুরীর জন্ম ১৯৪১ সালের ২ ফেব্রুয়ারি। তৎকালীন বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলার মহকুমা বর্তমান কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার কিরাটন গ্রামের বিলপাড়ায় তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর মায়ের নাম হাজেরা খাতুন এবং বাবার নাম সিরাজউদ্দীন খান চৌধুরী।

কবি মহীউদ্দিন খান চৌধুরী কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল কলেজে পড়াশুনা শেষ করে বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগে চাকুরী করেন উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদশর্ক হিসাবে।

তিনি কিশোরগঞ্জ এবং ময়মনসিংহ ভিত্তিক সাহিত্য আন্দোলনের সাথে যুক্ত থাকলেও জাতীয় পত্র-পত্রিকায় লিখতেন নিয়মিত। সম্পাদনা করেতেন ‘ঢেউ’ নামে মুক্ত কবিতার কাগজ। ‘ঢেউ’ কবিতার কাগজে বাংলাদেশের অনেক স্বনামধন্য কবিরা লিখেছেন।

তাঁর প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ পিরীতির নকশা, যে দেশে মানুষ ঘুমায়, বেদনা আমারি থাক, আমি কেন পাবো না তোমায় এবং কষ্টে আমি সমুদ্রে যাব।

কিশোরগঞ্জের প্রখ্যাত সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব প্রয়াত মুক্তি চৌধুরী তাঁর ছোট ভাই।

কবি মহীউদ্দিন খান চৌধুরী তিন সন্তানের জনক। বাংলাদেশের বিশিষ্ট গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব, দেশ টিভি, দীপ্ত টিভি এবং ডিবিসি নিউজ এর সাবেক অনুষ্ঠান বিভাগের প্রধান, বাংলাদেশের জনপ্রিয় টেলিভিশন প্রযোজক, গল্পকার ও কবি পারভেজ চৌধুরী তাঁর প্রথম পুত্র।

পারভেজ চৌধুরী জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী নেন। পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের একটি স্বনামধন্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রী নেন। বাংলা ভাষার বিখ্যাত কবি নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর বিখ্যাত কবিতা অমলকান্তি নিয়ে যে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মিত হয় তার মূল চরিত্র অমলকান্তির ভূমিকায় অভিনয় করেন।

বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি টেরেস্ট্রেরিয়াল টেলিভিশন একুশে টেলিভিশনের উপস্থাপিকা, বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি বেতার রেডিও মেট্রোওয়েভের ব্রডকাস্টার, ঢাকা থিয়েটারের সদস্য, মঞ্চ ও টেলিভিশন নাটকের আভিনেত্রী সেতু ফাল্গুনী তাঁর পুত্রবধু। ডাবিং শিল্পী হিসাবে কন্ঠ দিয়েছেন বাংলাদেশের অনেক বিদেশী জনপ্রিয় চলচ্চিত্র ও ধারাবাহিক নাটকে। সেতু ফাল্গুনী জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ব বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী নেন।

তারা উভয়েই বতর্মানে কানাডার টরন্টো শহরে বসবাসরত ও অধ্যয়নরত।

করিমগঞ্জের জনপ্রিয় স্কুল শিক্ষিকা প্রয়াত রোকেয়া মল্লিক কবি মহীউদ্দিন খান চৌধুরীর স্ত্রী। কিশোরগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাসুদ হাসান কবিকণ্যার জামাতা। তাঁর দৌহিত্র অহর্নিশ চৌধুরী ছোট বেলায় ইলেকট্রোনিকস সামগ্রী সিঙ্গার সহ বাংলাদেশের বিভিন্ন দেশীয় ফ্যাশন ব্র্যান্ডের মডেল হিসাবে কাজ করেছেন। বর্তমানে কানাডার ঐতিহ্যবাহী উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কার্লটন ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত কৃতী ছাত্র।

কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান, বাংলাদেশের জাতীয় এ্যথলেট, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এ্যথলেট কোচ, ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব ও মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম রুমি, কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হসপিটালের সাবেক পরিচালক ডা. এহসানুল হক মুকুল তাঁর বোনের ছেলে।

কিশোরগঞ্জের আঞ্চলিক ভাষায় রচিত লিরিকধর্মী পিরিতির নকশা কাব্যের জন্যে ২০০৫ সালে সুকুমার রায় ছড়া পুরস্কার পান কবি মহীউদ্দিন খান চৌধুরী। ২০১৪ সালের ৩ নভেম্বর তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো প্রায় ৭৪ বছর।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর