কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


রাত পোহালেই করিমগঞ্জের ১১ ইউনিয়নে ভোট



 হাবিবুর রহমান বিপ্লব, করিমগঞ্জ | ১০ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ৯:০৫ | করিমগঞ্জ  



কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের যাবতীয় কার্যক্রম গ্রহণ করেছে প্রশাসন।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) মধ্যরাত থেকে প্রচার প্রচারণা শেষ হয়েছে। বুধবার (১০ নভেম্বর) সকাল থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয় ব্যালট বাক্স। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) সকাল থেকে অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচনের ভোট গ্রহণ।

করিমগঞ্জ উপজেলার কাদিরজঙ্গল, গুজাদিয়া, কিরাটন, বারঘড়িয়া, দেহুন্দা, নিয়ামতপুর, সুতারপাড়া, গুনধর, জয়কা, নোযাবাদ ও জাফরাবাদ ইউনিয়নের সব ক'টি ওয়ার্ডে ব্যালটের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হবে।

নির্বাচনের মাঠে রাতদিন কাজ করছে প্রশাসন। বুধবার (১০ নভেম্বর) সারাদিন বিভিন্ন ইউনিয়নে পুলিশের মোবাইল টিমকে টহল দিতে দেখা গেছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসলিমা নূর হোসেন জানান, নিবার্চনের আগের দিন থেকে ৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ৪ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভিন্ন ভিন্ন টিম নিয়ে মাঠে অবস্থান করবেন।

এছাড়া নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিপুল সংখ্যক পুলিশ, বিজিবি, আনসার ও ভিডিপি সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।

এসব বাহিনীর সদস্যরা ভ্রাম্যমাণ আদালতের সাথে ও ভিন্ন ভিন্ন স্ট্রাইটিং টিম হয়ে মাঠে কাজ করবে।

তিনি আরও জানান, প্রতিটি কেন্দ্রে একজন উপ-পুলিশ পরিদর্শক, ৫জন পুলিশ ও ৬জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করবে। তাছাড়া প্রতিটি ইউনিয়নে তিনটি করে পুলিশের টহল টিম মাঠে অবস্থান করবে।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার ফরিদ আহমেদ জানান, ইতোমধ্যে নির্বাচনের সকল সরঞ্জাম প্রতিটি কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। ১১টি ইউনিয়নে মোট ১০৯টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে প্রার্থীরা একে অন্যের অনুকুলের কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ মনে করে আবেদন করলেও প্রশাসন কোন কেন্দ্রকেই ঝুঁকিপূর্ণ মনে করছেন না।

এ ব্যাপারে তিনি যথেষ্ট পরিমাণ আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যদের মোতায়েন করার বিষয়টি তুলে ধরেন।

১১টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৮৯ জন, সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থী ১২৯ জন ও সাধারণ মেম্বার প্রার্থী ৪২৯ জন।

সরেজমিনে করিমগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায়, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রত্যেক ইউনিয়নে একধরনের উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে।

স্থানীয় ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা এখনো পর্যন্ত নির্বাচনকে ঘিরে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার আশংকা করছেন না। তারা আশা করছেন, এবারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে।

নির্বাচনকে ঘিরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে করিমগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ইউপি নির্বাচনকে অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার লক্ষ্যে পুলিশ, বিজিবি ও আনসার বাহিনীর সমন্বয়ে আমরা ৩ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছি।

তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে কেউ যাতে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাতে না পারে, সেজন্য সার্বক্ষণিক আমরা প্রস্তুত রয়েছি।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর