কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


করিমগঞ্জে আওয়ামী লীগ থেকে দুই ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিন নেতা বহিষ্কার



 হাবিবুর রহমান বিপ্লব, করিমগঞ্জ | ১৭ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ১:০০ | রাজনীতি 



কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরোধিতা করায় দুই ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিন নেতাকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করার কথা জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদ।

গত ৯ নভেম্বর তারিখে উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদ স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তির বিষয়টি মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) জানাজানি হয়।

বহিষ্কৃতরা হলেন, দেহুন্দা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সঞ্জু, কিরাটন ইউপি চেয়ারম্যান ইবাদুর রহমান শামীম ও কিরাটন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন।

তাদের মধ্যে দেহুন্দা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সঞ্জু দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়া এবং কিরাটন ইউপি চেয়ারম্যান ইবাদুর রহমান শামীম ও সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেনের বিরুদ্ধে দলীয় প্রার্থীর বিরোধিতা করার অভিযোগ রয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে ইবাদুর রহমান শামীম কে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, গত ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন বাণিজ্যের মাধ্যমে অযোগ্যদের প্রার্থী করায় প্রায় সব-কটি ইউনিয়নে এমন অসন্তোষ আছে। মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে আহ্বায়ক এ কাজ করায় আমি প্রথমে নির্বাচনে সহযোগিতা না করলেও পরে দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় কাজ করেছি।

তারপরও আমাকে অন্যায়ভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। আমি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে এর বিচার চাইবো।

দেহুন্দা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সঞ্জু জানান, বহিষ্কারাদেশের কথা শুনেছি। কিন্তু এ বিষয়ে মন্তব্য করব না। তবে অর্থের বিনিময়ে পকেট কমিটি ও মনোনয়ন বাণিজ্যের মাধ্যমে দলকে ধ্বংসের চক্রান্ত রুখে দিতে হবে।

এদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদ জানান, দলের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মেনে তাদেরকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৪৫ এর (ঠ) ধারা অনুযায়ী একজনকে স্থায়ী বহিষ্কার ও দুইজন কে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশ গ্রহণ করা নেতাকর্মীদের তালিকা তৈরি ও সাময়িক বহিষ্কারদের বিষয়ে তদন্ত পূর্বক স্থায়ী বহিষ্কারদেশ প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

কিরাটন, দেহুন্দা ও নোয়াবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি পুনর্গঠনেরও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

গত ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫টিতে (গুজাদিয়া, বারঘড়িয়া, নিয়ামতপুর, গুনধর ও জাফরাবাদ) আওয়ামী লীগ প্রার্থী বিজয় অর্জন করে। স্থগিত হওয়া সুতারপাড়া ইউনিয়নেও আওয়ামী লীগের চূড়ান্ত বিজয় নিশ্চিত হবে বলে নেতাকর্মীরা ধারণা করছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদ দলে শৃঙ্খলা রক্ষায় কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর