কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


সোমবার উপজেলায় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে আওয়ামী লীগের ফরম বিক্রি শুরু


 কিশোরগঞ্জ নিউজ ডেস্ক | ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, সোমবার, ১:১০ | জাতীয় 


সারাদেশে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা সোমবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টা থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে পারবেন। রোববার (৩ ফেব্রুয়ারি) আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ৪ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) সকাল ১০টা থেকে সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ এবং জমা দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

পাঁচ ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। তফসিল অনুযায়ী আগামী ১০ মার্চ প্রথম ধাপে ৮৭ উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়ন দাখিলের শেষ সময় ১১ ফেব্রুয়ারি, যাচাই-বাছাই ১২ ফেব্রুয়ারি এবং প্রত্যাহার ১৯ ফেব্রুয়ারি। প্রথম ধাপে চার বিভাগের ১২ জেলার ৮৭টি উপজেলায় ১০ মার্চ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া দ্বিতীয় ধাপে ১৮ মার্চ, তৃতীয় ধাপে ২৪ মার্চ ও চতুর্থ ধাপে ৩১ মার্চ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আর পঞ্চম ধাপে ভোটের সম্ভাব্য তারিখ রমজানের পর ১৮ জুন।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানান, প্রথম ধাপের ভোটে রংপুর বিভাগের পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, লালমনিরহাট এবং রংপুর জেলার সবগুলো উপজেলা। ময়মনসিংহ বিভাগের নেত্রকোণার আটপাড়া উপজেলা বাদে বাকি সবগুলো উপজেলা, জামালপুর জেলার সবকটি উপজেলায় ভোট অনুষ্ঠিত হবে।

সিলেটের সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর বাদে সবকটি উপজেলায়, হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা বাদে সব উপজেলায় ভোট হবে। রাজশাহী বিভাগের সিরাজগঞ্জ জেলার কামারখন্দ উপজেলা বাদে বাকি সবগুলো উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

জয়পুরহাট জেলার সবকটি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নাটোরের নলডাঙ্গা বাদে বাকিসবগুলো উপজেলায় নির্বাচন হবে এবং রাজশাহী জেলার সবগুলো উপজেলায় নির্বাচন হবে।

ইসি সচিব আরো জানান, ভোটে প্রার্থী হতে স্থানীয় সরকারের লাভজনক সব পদ থেকে পদত্যাগ করতে হবে।

এবারই প্রথম জাতীয় নির্বাচনের মতো দলীয় প্রতীকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

উপজেলা পরিষদ আইন, ১৯৯৮ এর ১৭(১)(গ) ধারা অনুযায়ী, উপজেলা পরিষদের মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখের আগের ১৮০ দিনের মধ্যে ভোটগ্রহণের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। পরিষদের প্রথম বৈঠক (সভা) থেকে মেয়াদ শুরু হয়। সর্বশেষ ২০১৪ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি ৯৭টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ওই বছরের জুন-জুলাইয়ে সব মিলিয়ে সাত ধাপে প্রায় ৪৮৬টি উপজেলা পরিষদে নির্বাচন হয়েছিল। ওই বছরের ভিন্ন ভিন্ন সময়ে উপজেলা পরিষদগুলোতে প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। ফলে ইতোমধ্যে অর্ধেকের বেশি উপজেলা পরিষদ ভোটগ্রহণের উপযোগী হয়েছে।

১৯৮৫ সালে বাংলাদেশে প্রথমবার, ১৯৯০ সালে দ্বিতীয়বার, ২০০৯ সালে তৃতীয়বার ও ২০১৪ সালে চতুর্থবারের মতো উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর