কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতলেন কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান চিত্রনায়ক সাইমন


 বিশেষ প্রতিনিধি | ৭ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৬:৫৯ | জাতীয় 


‘জান্নাত’ ছবিতে দুর্দান্ত অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। ২০১৮ সালের শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। ‘পুত্র’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে একই বছরের শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন ফেরদৌস।

ফলে যুগ্মভাবে চিত্রনায়ক ফেরদৌস এবং সাইমন সাদিক শ্রেষ্ঠ অভিনেতা প্রধান চরিত্রে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) বিকালে সাইমন সাদিক তার ফেসবুকে দেয়া এক পোস্টে এ তথ্য জানিয়েছেন।

সাইমন সাদিক লিখেছেন, “আলহামদুলিললাহ। আমার অল্প জীবনে সেরা অর্জন।।। মহান আল্লাহ্’র অশেষ রহমতে, আপনাদের সকলের দোয়ায় ‘জান্নাত’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ে বিশেষ ভুমিকা রাখার জন্য সন্মানিত জুড়িবোর্ড আমাকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৮ এর সেরা চলচ্চিত্র অভিনেতা ২০১৮ সন্মাননা দিতে যাচ্ছেন। যা কিনা আমার মতো অভিনয় শিখতে চাওয়া ছেলের কাছে জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন।

“জান্নাত” চলচ্চিত্রে পরিচালক হিসেবে অনন্য অবদান রাখার জন্য সেরা পরিচালক হচ্ছেন মোস্তাফিজুর রহমান মানিক ভাই। সেরা পার্শ্ব অভিনেতা আলী রাজ কাকা। সেরা সংগীত শিল্পী ইমন সাহা দাদা। কাহিনীকার সুদিপ্ত সাইদ খান। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।আপনাদের ভালোবাসার মান যেনো রাখতে পারি। সবার জন্য অনেক অনেক ভালোবাসা।”

সাইমন সাদিক অভিনীত ‘জান্নাত’ সিনেমাটি গত বছর ঈদুল আযহায় মুক্তি পেয়েছিলো। এই ছবিতে সাইমনের বিপরীতে অভিনয় করেছেন মাহিয়া মাহি। বাংলাদেশের দর্শকের প্রশংসা কুড়িয়ে সিনেমাটি বেশ কিছু দেশের চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়।

তবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়ার আগেই ‘জান্নাত’ ছবিতে দুর্দান্ত অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে ভারতের আগরতলায় পুরস্কৃত হয়েছেন সাইমন সাদিক। গত ১৫ সেপ্টেম্বর ত্রিপুরার পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী প্রনজিত সিংহ রায় আনুষ্ঠানিকভাবে সাইমনের হাতে সম্মাননা তুলে দেন। ‘জান্নাত’ ছবিতে পথভ্রষ্ট এক যুবকের চরিত্রে সাইমনের অভিনয় দারুণ প্রশংসিত হয়েছে।

চিত্রনায়ক সাইমন সাদিকের জন্ম ১৯৮৬ সালের ৩০ আগস্ট কিশোরগঞ্জ সদরের মহিনন্দ ইউনিয়নের কলাপাড়া গ্রামে। বাবা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. সাদেকুর রহমান। মা উম্মে কুলসুম গৃহিনী। তিন বোন ও দুই ভাইয়ের মধ্যে সাইমন চতুর্থ। স্কুল জীবনে পড়াশোনা করেছেন কিশোরগঞ্জ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে। পরে ঢাকায়।

পরিচালক জাকির হোসেন রাজুর হাত ধরে চলচ্চিত্রে আগমন ঘটে এই সুদর্শন নায়কের। ২০১২ সালের দিকে আনন্দমেলা চলচ্চিত্রের প্রযোজনা ও জাকির হোসেন রাজুর পরিচালনায় ‘জ্বী হুজুর’ চলচ্চিত্রের নায়ক হিসেবে সাইমনের অভিষেক। তারপর থেকে বাজিমাত করেই চলেছেন তিনি।

বিশেষ করে জাকির হোসেন রাজুর ‘পোড়ামন’ ছবি দিয়ে তিনি আলোচনায় আসেন। পাশাপাশি কেয়া ও মৌসুমি হামিদের বিপরীতে ‘ব্ল্যাকমানি’ ছবিতেও অভিনয় করে প্রশংসিত হন তিনি। তার মুক্তিপ্রাপ্ত অন্যান্য ছবির মধ্যে রয়েছে ‘তোমার কাছে ঋণী’, ‘তুই শুধু আমার’, ‘স্বপ্ন ছোঁয়া’, ‘পুড়ে যায় মন’,‘মায়াবিনী’, ‘জান্নাত’সহ বেশ কিছু।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর