কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ত্যাগ ও দায়িত্বপালনে অবিচল এক দেশপ্রেমিক সচিব আবদুল মান্নান


 শাহ্ ইস্কান্দার আলী স্বপন | ৯ আগস্ট ২০২০, রবিবার, ১:২১ | মত-দ্বিমত 


মাননীয় স্ব্যাস্থ্য সচিব মহোদয়, প্রিয় মান্নান ভাইয়ের স্ত্রী জেবু ভাবীর কোভিড-১৯ এ অকাল মৃত্যু বাংলাদেশের সকল মানুষের জন্যই বিষাদময় এক অনুভূতি। কেননা তিনি তখন দীর্ঘ দিন ধরে তার পরিবারকে দূরে রেখে নিজ জেলা কিশোরগঞ্জে করোনা প্রতিরোধ ও আক্রান্তদের বাঁচাতে নিবেদিত প্রাণ কর্মি ও জেলার দায়িত্ব প্রাপ্ত সচিব।

সার্জিকেল মাস্ক পড়ে জীবন বাজি রেখে সর্বাগ্রে থেকে প্রতিদিন তিনি উপস্থিত হচ্ছেন কোন না কোন উপদ্রুত এলাকায় ত্রাণ সামগ্রীর সুষ্ঠু বন্টন কিংবা চিকিৎসা উপকরণ সরবরাহে।

জেবু ভাবী তখন দীর্ঘ দিন স্বামীর বিরহ কাতর, অবশেষে স্বামীকে দেখার জন্য কিশোরগঞ্জে শ্বশুর বাড়ি এসে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

জেবু ভাবীর সাথে আমার দেখা বহু বছর আগে। তখন মান্নান ভাইয়ের বাসা নিউমার্কেটের ধারে, আজিমপুর অফিসার্স কলোনির ফ্লাট, আর আমি থাকি আজিমপুর শেখ সাহেব বাজার।

আমাদের নিয়মিত আড্ডা হতো আজিমপুর ছাপড়া মসজিদের নীচে বা কলোনির মাঠে। মান্নান ভাইয়ের সাথে প্রাত:ভ্রমণ করে কখনো সখনো তার বাসায় ঢুকে গেলে জেবু ভাবী নাস্তা না খেয়ে আসতে দিতেন না।

তখন তারা কেবল বিয়ে করেছেন। মান্নান ভাইয়ের মামার বাড়ি পাকুন্দিয়া, জেবু ভাবী সম্পর্কে তার মামাতো বোন হওয়ায় স্ত্রীর প্রতি মান্নান ভাইয়ের ভালোবাসার টান আর দায়িত্ব বোধ ছিলো স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি। এবং নিশ্চয়ই তাদের ৩০ বছরের সংসার জীবনে সম্পর্কটা যে কতটা আবেগ আর অনুভুতি মিশ্রিত ভালোবাসায় গড়িয়েছিলো তা সহজেই অনুমেয়।

দায়িত্ব পালনে মান্নান ভাই যে সর্বদাই সর্বাগ্রে অংশ নেন এবং সুচারু ভাবে পালন করেন তা আমার চেয়ে আর কে বেশি জানে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন কালে দুজনেই মহসিন হলের ছাত্র ছিলাম। এক বছরের সিনিয়র হলেও কোন কাজে ছয় তলায় তার রুমে গেলে তিনি দায়িত্ববান অভিভাবকের মতোই সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতেন।

নব্বইয়ের ছাত্র আন্দোলন যখন তুঙ্গে, মহসিন হলের চার তলায় বিস্ফোরণে ছাত্রনেতা মাহবুবুল হক বাবলু (কিশোরগঞ্জ শোলাকিয়ার মেয়ে নাজমার স্বামী) যখন আহত হন, চারদিক ধোঁয়াচ্ছন্ন, রুমের ঢালাই মেঝে রড ছিঁড়ে গর্ত হয়ে নীচে পড়ে যায়, রুমের দরজা উড়ে গিয়ে বারান্দার দেয়ালে ঠেকে। জীবন বাঁচাতে সবাই পালিয়ে যায়।

তখন মান্নান ভাই এগিয়ে আসেন ও বলেন, ‘এসো আমাকে সাহায্য কর বাবলুকে বাঁচাতে হবে।’ মান্নান ভাই আর আমি অতি কষ্টে কোলে করে আহত ছাত্রনেতা মাহবুবুল হক বাবলুকে হলের কড়িডোর পেরিয়ে উত্তর পাশের সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামাই।

আমি ক্লান্ত হয়ে পড়ি মান্নান ভাই গেট থেকে অন্য এক ছাত্রকে নিয়ে স্কুটারে করে তদানিন্তন পিজি হাসপাতালে পৌঁছান। শুধু তাই নয়, তিনি পুলিশি হয়রানি উপেক্ষা করে ছাত্রনেতা মাহবুবুল হক বাবলুর সুচিকিৎসার জন্য নীচ তলায় অপারেশন থিয়েটারে ডাক্তারদের অনুরোধ করতে থাকেন।

ততক্ষণে মাহবুবুল হক বাবলুর ছোট ভাই ছাত্রনেতা সানাউল হক নীরু সহ অসংখ্য আন্দোলনরত ছাত্র ছাত্রী হাসপাতালে এসে সমবেত হয়, অপারেশন চলা অবস্থায় মারা যান ছাত্রনেতা মাহবুবুল হক বাবলু।

জেনারেল এরশাদের শাসনামলে শিক্ষা জীবন দীর্ঘায়িত হওয়ায় ও বৃদ্ধ বাবার একমাত্র ছেলে সন্তান হিসেবে অসুস্থ্য মায়ের চিকিৎসার কথা ভেবে ও চাকুরী প্রাপ্তির আশা না করে শুরুতেই স্বাবলম্বী হওয়ার চেষ্টা করি। মান্নান ভাইয়ের সহযোগিতা ও আমার প্রতি তার দায়িত্ব তখনো অটুট।

প্রথম আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড ক্রোকাডাইলের বাংলাদেশে ইনভেষ্টার হিসেবে আনাম রেংগস প্লাজায় প্রথম শো- রুম উদ্বোধনী অনুষ্টানে তদানিন্তন ষ্টেট মিনিষ্টার হেলথ এর সহযোগী হিসেবে উপস্থিত থেকে দেশের প্রথম আন্তর্জাতিক লাইফষ্টাইল ব্র্যান্ড ক্রোকাডাইল উদ্ভোধন করেন মান্নান ভাই।

উল্লেখ্য তখনো মান্নান ভাই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে সহকারী সচিব হিসেবে জনস্বাস্থ্যের উন্নয়নে নিয়োজিত ছিলেন। আজ মান্নান ভাই একই মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব প্রাপ্ত হয়েছেন, আমার দৃষ্টিতে এ দায়িত্ব তার যোগ্যতার নিরিখে সামান্যই বটে!

আমার বিশ্বাস তার নেতৃত্বেই সুসংগঠিত হয়ে সুনামের সাথে মাথা উঁচু করে ঘুরে দাঁড়াবে আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। উন্নয়ন হবে স্বাস্থ্য সেবার মান।

কোভিড-১৯ সময়ে, করোনা আক্রান্ত হয়ে জেবু ভাবীর মৃত্যু মান্নান ভাইয়ের বুকের ভেতরের হাহাকার আর কষ্ট শুধুই তার একার নয়, আমাদের সকলের, এ কষ্ট বাংলাদেশের মানুষের।

জেবু ভাবীর আত্মার মাগফেরাত কামনা করি। মাননীয় সচিব মহোদয় প্রিয় মান্নান ভাই ও তার সন্তানদের এই শোক বইবার শক্তি পরম করুণাময় আল্লাহ তায়ালা দান করুন। আমিন।

# শাহ্ ইস্কান্দার আলী স্বপন, সি.ই.ও. জিওর্দানো বাংলাদেশ (বাংলাদেশে প্রথম ও একমাত্র বৈশ্বিক লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড)।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর