কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


সহকারী গ্রন্থাগারিক ও 'অশিক্ষক' প্রসঙ্গ


 মোহাম্মদ কামরুজ্জামান | ২১ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার, ১২:৩১ | মত-দ্বিমত 


২০১৭ সালে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত সহকারী গ্রন্থাগারিক ও গ্রন্থাগারিকগণ 'অশিক্ষক'- এই মর্মে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড একটি পরিপত্র জারি করেছে। এর পর থেকেই বহু আবেদন, অবস্থান, অনশন পালন করলেও এই পরিপত্র প্রত্যাহার, সংশোধন হয়নি।

প্রতিটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একজন সহকারী গ্রন্থাগারিককে তার গ্রন্থাগারের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি প্রতি কর্মদিবসে ৫-৬টি ক্লাশ নিতে হয় এবং প্রক্সি ক্লাশের কথা তো বলার অপেক্ষাই রাখে না। শিক্ষকগণের অনুপস্থিতিতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সহকারী গ্রন্থাগারিকের ডাক পড়ে!

বছরের শুরুতে নতুন বই সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও বিতরণের দায়িত্ব একজন সহকারী গ্রন্থাগারিককেই পালন করতে হয়। এছাড়াও পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন, পরীক্ষার দায়িত্ব পালনও করতে হয়। এতো কিছুর পরও একজন গ্রন্থাগারিক শিক্ষক নন!

আমরা যতদূর জানি, মাননীয় সাবেক শিক্ষা সচিব জনাব নজরুল ইসলাম খান এর সময় গ্রন্থাগারিকগণকে 'টিচিং স্টাফ' হিসেবে রেখে একটি পরিপত্র জারির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন ছিলো। উক্ত সিদ্ধান্ত কেন বাতিল হলো, তা স্বাভাবিক ভাবেই আমাদের অজ্ঞাত।

গ্রন্থাগারিক এর পোস্ট যেহেতু সাম্প্রতিক সময়ে সৃষ্টি হওয়া, তাই এ বিষয়ে সুস্পষ্ট নীতিমালা অবশ্যই প্রয়োজন। তবে এই নীতিমালা করতে গিয়ে গ্রন্থাগারিকগণকে কোন ভাবেই যেন সমাজের চোখে হেয় করা না হয়। কেননা ইতোমধ্যেই আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়ে গেছে, গ্রন্থাগারিকগণ যেহেতু শিক্ষক নন তাহলে তারা কোথায় হাজিরা স্বাক্ষর করবেন? এ রকম আরো বহুবিধ প্রশ্ন আসছে। এমনকি গ্রন্থাগারিকগণকে বিষয়ভিত্তিক প্রশিক্ষণ থেকেও বিরত রাখা হচ্ছে।

বর্তমান সরকারের সুদূর প্রসারী ইতিবাচক চিন্তার ফল হিসেবে এই পোস্ট সৃষ্টি করা হয়েছে। যা দেশে বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে এবং হচ্ছে। জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনে গ্রন্থাগারের বিকল্প নেই। আর সেই গ্রন্থাগারের গ্রন্থাগারিককে অন্ধকারে রেখে সেটা আদৌ সম্ভব কিনা ভাবা দরকার।

১০ম গ্রেডের স্টাফ হিসেবে গ্রন্থাগারিকগণকে যদি টিচিং স্টাফ হিসেবে আইনে রাখা হলে সরকারের কোন ক্ষতি বা ব্যয় বৃদ্ধি না হয়, তা হলে বাধা কোথায়? মানুষকে খাটো করে নয় সম্মান করেই সুষ্ঠু, সুন্দর, শিক্ষিত সমাজ গঠন সম্ভব।

তাই মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা সচিব মহোদয় এবং সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আবেদন গ্রন্থাগারিকগণকে টিচিং স্টাফ হিসেবে রেখে নতুন পরিপত্র জারি করা হোক।

# মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, সহকারী গ্রন্থাগারিক, আরজত আতরজান উচ্চ বিদ্যালয়, কিশোরগঞ্জ এবং আহবায়ক, মাধ্যমিক বিদ্যালয় গ্রন্থাগার সমিতি।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর


















সেগুনবাগিচা, গৌরাঙ্গবাজার, কিশোরগঞ্জ-২৩০০
মোবাইল:০ ১৮১৯ ৮৯১০৮৮, ০১৮৪১ ৮১৫৫০০
kishoreganjnews247@gmail .com
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি: সাইফুল হক মোল্লা দুলু
প্রধান সম্পাদক: আশরাফুল ইসলাম
সম্পাদক: সিম্মী আহাম্মেদ