কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী


 স্টাফ রিপোর্টার | ৩ এপ্রিল ২০১৯, বুধবার, ৮:৪৩ | জাতীয় 


ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল (কেইজেড) উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (৩ এপ্রিল) সকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চলের উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সময় তিনি ২৩টি অর্থনৈতিক অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার ৬৫টি প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

কিশোরগঞ্জ প্রান্তে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষ থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে কথা বলেন জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।

জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ সময় পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার), অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মো. আক্তার জামীল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহজাহান, পাকুন্দিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম রেনু, পাকুন্দিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমানসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এবং কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত করতে হবে। এজন্যে খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে হবে। পাশাপাশি দুর্যোগকালীন খাদ্য মজুদের ব্যবস্থা করতে হবে। কারও কাছে যেন আমাদেরকে হাত পাততে না হয়, মর্যাদা নিয়ে যেন আমরা থাকতে পারি, সেভাবেই আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হবে।

বর্তমান সরকারের লক্ষ্য ১০০ টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করার কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেই বেসরকারি খাতকে উন্মুক্ত করে দিয়েছে। বিনিয়োগ করার জন্য এগিয়ে আসা উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বেজা-এর নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী ইকোনমিক জোনের বিভিন্ন কার্যক্রমের বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন।

দেশকে শিল্পায়নে এগিয়ে নিতে সরকারের মহাপরিকল্পনা অনুযায়ী অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে উন্নয়নের কার্যক্রম চলছে। এর অংশ হিসেবে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি নিটল-নিলয় গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল (কেইজেড) কে চূড়ান্ত লাইসেন্স দিয়েছে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ-বেজা।

পাকুন্দিয়া উপজেলায় পুলেরঘাটে ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের দুই পাশে ৯১ দশমিক ৬৩ একর জমির উপর স্থাপিত এই অর্থনৈতিক অঞ্চলটি দেশের নবম বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চল।

এর আগে ২০১৭ সালের ৩ জুলাই বেজা কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল (কেইজেড) কে প্রি-কোয়ালিফিকেশন লাইসেন্স দেয়। সব শর্ত পূরণ করায় গত ১৮ ফেব্রুয়ারি চূড়ান্ত সনদপত্র (কোয়ালিফিকেশন লাইসেন্স) দেয়া হয়।

নতুন এই অর্থনৈতিক অঞ্চলটিতে ইতোমধ্যে ভারতের টাটা মটরসের সঙ্গে যৌথভাবে মোটরযান নির্মাণের কারখানা স্থাপনের কাজে হাত দিয়েছে বাংলাদেশি নিটল-নিলয় গ্রুপ। ভারতের আরেকটি স্টিল প্রস্তুতকারী কোম্পানি এখানে বিনিয়োগের জন্য আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

এছাড়া এখানে ইলেকট্রিক গাড়ি, এগ্রো বেইজড ফুড অ্যান্ড বেভারেজ, গার্মেন্টস, টেক্সটাইল, তথ্য প্রযুক্তি ও টেলিযোগাযোগসহ অন্যান্য খাতে বিনিয়োগের কার্যক্রম এগিয়ে চলছে বলে জানিয়েছেন কিশোরগঞ্জ ইকনোমিক জোন কর্তৃপক্ষ।

সম্পূর্ণরূপে বাস্তবায়িত হলে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে এখানে পাঁচ হাজার মানুষের প্রত্যক্ষ কর্মসংস্থান ও ২০ হাজার মানুষের পরোক্ষ কর্মসংস্থান হবে বলে আশা করছেন তারা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ: চূড়ান্ত লাইসেন্স পেল কিশোরগঞ্জ ইকনোমিক জোন, গাড়ি নির্মাণ করবে টাটা




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর