কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


সম্মানজনক জীবনের জন্য সম্মানীভাতা তিনগুণ চান পোস্টাল ইডি কর্মচারীরা


 স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বুধবার, ১:৫৮ | বিশেষ সংবাদ 


নিজগ্রাম পর্যায়ের ডিজিটাল পোস্ট অফিসগুলোতে বিভিন্ন পদে যারা কর্মরত রয়েছেন, তাঁদের সর্বোচ্চ সম্মানীভাতা চার হাজার ৪৬০ টাকা। এ টাকায় তাঁদের সংসার চালানো দূরের কথা, হাত খরচও হয় না- এই দুর্মূল্যের বাজারে।

বহু বছরের বঞ্চনার অবসান ও একটা সম্মানজনক জীবনের আশায়, ডিজিটাল পোস্ট অফিসের কর্মচারীরা দীর্ঘদিন যাবত তিনগুণ ভাতা বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে আসছেন।

দাবি আদায়ের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ পোস্টাল ইডি কর্মচারী ইউনিয়নের ব্যানারে বিভিন্ন সময়ে মানববন্ধন, কর্মবিরতি ও স্মারকলিপি প্রদানের মতো কর্মসূচি পালন করেছেন তারা। কিন্তু কোন কিছুতেই তাদের দাবি বাস্তবায়িত হচ্ছে না। ফলে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে তাদের।

হোসেনপুরের পিপলাকান্দি ডিজিটাল পোস্ট অফিসের শাখা পোস্টমাস্টার (ইডিএ) মো. কামরুল ইসলাম ভূঁইয়া নিজেদের দুর্ভাগ্য ও বঞ্চনার কথা জানাতে গিয়ে বলেন, ২০ বছর ধরে চাকরি করছি। বেতন মাত্র চার হাজার ৪৬০টাকা।

এই বেতনের কথা কাউকে লজ্জায় বলতে পারি না। সংসার চলে না, ছেলেমেয়েদের পড়ালেখার খরচ দিতে পারি না। ধার-কর্জ করে দিনে দিনে নিঃশেষ হয়ে যাচ্ছি। কিন্তু আমরা আর পারছি না। এবার সরকারকে কিছু একটা করতে হবে। আমরা সম্মানজনক একটা জীবন চাই।

কটিয়াদীর মুমুরদিয়া শাখা ডাকঘরের পিয়ন (ইডিডিএ) মো. আব্দুল হাই জানান, আমাদের যে সম্মানীভাতা দেওয়া হয়, তা খুবই অসম্মানজনক। আমরা এই বঞ্চনার অবসান চাই।

তিনি বলেন, স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি। সন্তানদের কাছেও কত টাকা ভাতা পাই বলতে পারি না।

বাংলাদেশ পোস্টাল ইডি কর্মচারী ইউনিয়ন কিশোরগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল হাসেম ভূঁইয়া জানান, ১৯৯৬ সাল থেকে দাবি-দাওয়া আদায়ে তারা নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনে রয়েছেন। সময়ে সময়ে ভাতা কিছুটা বাড়লেও সেটি কোনভাবেই সম্মানজনক পর্যায়ে আসেনি।

এখন তাঁদের মূল দাবি বর্তমান সম্মানি ভাতার তিনগুণ বৃদ্ধি। দুই মাসের ভাতার সম্মান দুটি উৎসব ভাতা। ইডি কর্মচারীদের চাকরিতে যোগদানের বয়স সর্বোচ্চ ৪০ ও অবসরের বয়স সর্বনিম্ন ৭০ বছর করাসহ ১০ দফা দাবি রয়েছে। এ দাবি আদায়ে তারা বিভিন্নভাবে সোচ্চার রয়েছেন।

সর্বশেষ গত শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) কিশোরগঞ্জ প্রধান ডাকঘর চত্বরের সামনে তারা সংগঠনের জেলা কমিটির জরুরী সভা করেছেন।

এ সভা থেকে তারা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার জন্য কর্মসূচি গ্রহণ ছাড়াও সংগঠন বিরোধী চক্রের মোকাবেলায় সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণের ব্যাপারে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর