কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জের ১৩ উপজেলায় প্রতীক পেলেন ৫৫ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী


 স্টাফ রিপোর্টার | ৮ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার, ৮:৩০ | নারী 


পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ জেলার ১৩টি উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোট ৫৫ জন প্রার্থী। নারীর ক্ষমতায়নে নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হওয়া এসব প্রার্থীদের মধ্যে শুক্রবার (৮ মার্চ) প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।

কিশোরগঞ্জ জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর, নিকলী, বাজিতপুর, কুলিয়ারচর, ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম এই ৭টি উপজেলার প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ কার্যক্রম জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং অফিসার কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মো. আক্তার জামীল।

অন্যদিকে বাকি ৬টি উপজেলা করিমগঞ্জ, তাড়াইল, হোসেনপুর, পাকুন্দিয়া কটিয়াদী ও ভৈরব উপজেলার প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ কার্যক্রম জেলা নির্বাচন অফিসের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং অফিসার কিশোরগঞ্জের জেলা নির্বাচন অফিসার মো. তাজুল ইসলাম।

কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন প্রার্থী হলেন, তাছলিমা সুইটি (ফুটবল), তাহমিনা আক্তার নাজমা (কলস) ও মোছা. মাছুমা আক্তার (হাঁস)।

হোসেনপুর উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে চার প্রার্থী হলেন, খাইরুন্নাহার হেপী (ফুটবল), রৌশনারা (কলস), মোছা. সুফিয়া কানন (পদ্মফুল) এবং সেলিনা আক্তার (হাঁস)।

তাড়াইল উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৯ প্রার্থী হলেন, সৈয়দা রৌশনারা (বৈদ্যুতিক পাখা), রুকিয়া বেগম (হাঁস), কামরুন্নাহার কবিতা (পদ্মফুল), মোছা. রুবি (প্রজাপতি), আইনতুন্নেছা (কলস), বেগম আক্তার (তীর-ধনুক), নার্গিস সুলতানা (সেলাই মেশিন), মোছা. সুমিয়া আক্তার রুভা (ক্যামেরা) এবং মোছা. হেপি আক্তার (ফুটবল)।

করিমগঞ্জ উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয় প্রার্থী হলেন, মোছা. দিলোয়ারা বেগম (সেলাই মেশিন), কারিমা বেগম (পদ্মফুল), মোছা. সেলিনা খানম (প্রজাপতি), রুপন রাণী সরকার (ফুটবল), আছমা আক্তার (হাঁস) এবং মোছা. রিনা আক্তার (কলস)।

কটিয়াদী উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ প্রার্থী হলেন, সাথী বেগম (কলস), রোকসানা (ফুটবল) এবং মোসা. নওরীন সুলতানা (হাঁস)।

ভৈরব উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন প্রার্থী হলেন, মনোয়ারা বেগম (হাঁস), আসমা আহমেদ (পদ্মফুল) এবং মোছা. আছমা খাতুন (কলস)।

নিকলী উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ প্রার্থী হলেন, জেসমিন আরা বিউটি (ফুলের টব), মিসেস জাহানারা বেগম (প্রজাপতি), রখা আক্তার (বৈদ্যুতিক পাখা), রেজিয়া আক্তার (কলস), রুবিনা আক্তার (হাঁস) এবং সুমাইয়া হক শিমু (ফুটবল)।

ইটনা উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুই প্রার্থী হলেন, নাছরিন সুলতানা মুক্তি (হাঁস) এবং মোছা. মমতাজ বেগম (কলস)।

অষ্টগ্রাম উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন প্রার্থী হলেন, কানিজ ফাতেমা (কলস), মোছা. লতিফা হক রতœা (ফুটবল) এবং মোছা. শেলী আক্তার (হাঁস)।

বাজিতপুর উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে চার প্রার্থী হলেন, আরিফা হোসেন (কলস), গোলনাহার (প্রজাপতি), মোছা. মনোয়ারা খাতুন (হাঁস) এবং মোছা. রুখেয়া বেগম (ফুটবল)।

পাকুন্দিয়া উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয় প্রার্থী হলেন, শামসুন্নাহার বেগম (কলস), মোছা. ফরিদা ইয়াছমিন (হাঁস), মোছা. হাবিবা খাতুন (পদ্মফুল), মোসা. খালেদা বেগম (ফুটবল), সাহেরা আক্তার খাতুন (সেলাই মেশিন) এবং মোছা. জাহানারা খাতুন (প্রজাপতি)।

কুলিয়ারচর উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন প্রার্থী হলেন, বিলকিছ আক্তার (কলস), মোছা. লিপি আক্তার (ফুটবল) এবং সাঈদা খানম মুক্তা (হাঁস)।
মিঠামইন উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন প্রার্থী হলেন ফেরদৌসী হক রীপা (হাঁস), মোছা. জলি চেšধুরী (ফুটবল) এবং মিনা খাতুন ময়না (কলস)।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর