কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


আল্লাহর কাছে রোজাদারের বিশেষ পুরস্কার


 হাফেজ মাওলানা যুবায়ের আহমাদ | ১০ মে ২০১৯, শুক্রবার, ১২:০৩ | ইসলাম 


ইবাদতের বসন্ত রমজান চলছে। রমজনের মূল বিধান হলো রোজা। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘হে ইমানদারগণ, তোমাদেও ওপর রোজা ফরজ করা হলো, যেমনভাবে তোমাদের পূর্ববর্তীদের ওপর ফরজ করা হয়েছিল, যেন তোমরা মুত্তাকি হতে পার।’ সুরা বাকারা : ১৮৩।

রোজা দেহের জাকাত। হজরত আবু হুরায়রা (রা.) বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, ‘প্রত্যেক বস্তুর জাকাত আছে, রোজা হলো শরীরের জাকাত।’ ইবনে মাজাহ।

আল্লাহ তায়ালা রোজা ফরজ করেছেন বান্দার কল্যাণের জন্যই। বান্দাকে অনেক পুরস্কার লাভের সুযোগ করে দিয়েছেন আল্লাহ রোজার মাধ্যমে। রোজাদারের জন্য অন্যতম বড় পুরস্কার হলো আল্লাহর ক্ষমা। রোজাদার যখন নিজেকে পানাহার, স্ত্রী সহবাস ও সব ধরণের পাপ কাজ থেকে বিরত রাখার মজবুত নিয়ত করে রোজা শুরু করেন, আল্লাহ তখন তাকে ক্ষমার মহাপুরস্কারে ধন্য করেন। ক্ষমা করে দেন অতীতের সব গুনাহ।

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) হতে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, ‘যে ব্যক্তি ইমান ও সওয়াবের আশায় রমজানের রোজা রাখে আল্লাহ তার অতীতের সব গুনাহ মাফ করে দেন।’ বুখারি ও মুসলিম।

রোজাদার হাশরের মাঠে রোজার সুপারিশপ্রাপ্ত হবেন। হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) হতে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন,  রোজা ও কোরআন উভয়ই বান্দার জন্য সুপারিশ করবে। রোজা আরজ করবে, হে আল্লাহ, আমি তাকে দিনের বেলা খাওয়া  ও পান করা থেকে বিরত রেখেছি, আপনি তার জন্য আমার সুপারিশ কবুল করুন! কোরআন বলবে হে আল্লাহ, আমি তাকে রাতের ঘুম থেকে বিরত রেখেছি, আমার সুপারিশ কবুল করুন! উভয়ের সুপারিশই কবুল করা হবে। মুসনাদে আহমাদ।

রোজা জাহান্নাম থেকে বাঁচার ঢাল। অর্থাৎ ঢাল যেমন কোনো লোককে আঘাত থেকে রক্ষা করে তেমনি রোজা মানুষকে জাহান্নাম থেকে রক্ষা করে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘রোজা হলো ঢাল ও জাহান্নামের আগুন থেকে বাঁচার মজবুত দুর্গ।’ মুসনাদে আহমাদ।

রোজা তো আল্লাহর সঙ্গে বান্দার প্রেম। রোজা রাখার কারণে রোজাদারের মুখে যে গন্ধ হয় তা আল্লাহ গ্রহণ করেন। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, ‘রোজা ব্যতীত আদম সন্তানের প্রতিটি কাজই তার নিজের জন্য, কিন্তু রোজা আমার জন্য। আমিই এর প্রতিদান দেব। রোজা ঢালস্বরূপ। রোজা রেখে কেউ যেন অশ্লীলতায় লিপ্ত না হয় এবং ঝগড়া না করে। যদি কেউ তাকে গালি দেয় অথবা তার সঙ্গে ঝগড়া করে তাহলে সে যেন বলে, ‘আমি রোজাদার’। যার হাতে মুহাম্মাদের প্রাণতা শপথ, অবশ্যই (রোজার ফলে সৃষ্ট) রোজাদারের মুখের গন্ধ আল্লাহর কাছে মিশকে চাইতেও সুগন্ধিময়। রোজাদারের জন্য দুটো আনন্দ। একটি হলো তার ইফতারের সময়, অপরটি তার প্রভুর সঙ্গে সাক্ষাতের সময়।’বুখারি।

রোজার মাধ্যমে আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টিই কেবল চেয়ে থাকেন মুমিনরা। আল্লাহ তাআলাও মুমিনদের এ ভালোবাসাকে কবুল করে নিয়ে জান্নাতী প্রতিদান দিয়ে তাদের জীবনকে কানায় কানায় পূর্ণ করে দেন। রোজাদারদের সংবর্ধিত করতে জান্নাতে থাকবে একটি বিশেষ গেট। রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, জান্নাতে রাইয়ান নামে একটি দরজা আছে। ওই দরজা দিয়ে কেবল রোজাদাররাই প্রবেশ করবে। ঘোষণা করা হবে, রোজাদাররা কোথায়? তখন তারা উঠে দাঁড়ালে তাদের জান্নাতে প্রবেশ করতে বলা হবে। তারা প্রবেশ করার পর ওই দরজা বন্ধ করে দেওয়া হবে এবং তা দিয়ে আর কেউ প্রবেশ করতে পারবে না। সহিহ বুখারি ও মুসলিম।

এখন গরমের দিন। এবার গরমের দিনেই কোটি কোটি মুসলমান রোজা রাখছেন। গরমের দিনে রোজা রাখার রয়েছে বিশেষ পুরস্কার। হাদিসে এসেছে, ‘আল্লাহ তায়ালা নিজের ওপর ফায়সালা করেছেন, যে ব্যক্তি গরমের দিন রোজা রাখে, আল্লাহ তাকে পিপাসার দিন (কিয়ামতের দিন) পানি পান করাবেন। মুসনাদে বাযযার।

রোজাদারের আরেক পুরস্কার হলো, রোজাদারের দোয়া আল্লাহ ফিরিয়ে দেন না। আল্লাহ তা কবুল করে নেন। হজরতআমর ইবনুর আস (রা.) হতে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, ‘রোজাদার যখন ইফতারের সময় দোয়া করেন, তখন তার দোয়া প্রত্যাখ্যান করা হয় না। অর্থাৎ কবুল করা হয়। মু’জামুল কাবির।

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) হতে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, তিন ব্যক্তির দোয়া প্রত্যাখ্যাত হয় না। ১. ন্যায়পরায়ন বাদশা, ২. ইফতারের আগ পর্যন্ত রোজাদারের দোয়া, ৩. মজলুমের দোয়া। ইবনেমাজাহ। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন দয়া করে আমাদের সবগুলো রোজা রেখে আল্লাহর পক্ষ থেকে পুরস্কার লাভের তাওফিক দিন!

# লেখক: জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত কারি, মুফাসসিরে কোরআন; ডেইলি সান, কালের কণ্ঠ ও বাংলাদেশ প্রতিদিনসহ বিভিন্ন বাংলা ও ইংরেজি জাতীয় দৈনিকের নিয়মিত কলামিস্ট।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর