কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


র‌্যাবের ক্যাসিনো অভিযানেও প্রশংসিত কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান সারওয়ার আলম


 আশরাফুল ইসলাম, প্রধান সম্পাদক, কিশোরগঞ্জনিউজ.কম | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ১:৩৬ | এক্সক্লুসিভ 


মো. সারওয়ার আলম র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। ভেজাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে দেশজুড়ে হচ্ছেন প্রশংসিত। এবার রাজধানীতে অবৈধ ক্যাসিনোতে অভিযান পরিচালনা করে প্রশংসায় ভাসছেন কিশোরগঞ্জের এই কৃতী সন্তান।

প্রতিদিনই ঢাকার কোনো না কোনো ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, শিল্পকারখানা কিংবা খাবারের দোকানে অভিযান চালাচ্ছেন মো. সারওয়ার আলম। একই সঙ্গে কিশোরদের মাদকসেবন থেকে শুরু করে রাজধানীতে ঘটা নানান অপরাধ কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধেও সমানতালে অভিযান চালাচ্ছেন তিনি। প্রতিদিন রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় এসব অভিযানের ছবিসহ নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টেও সচেতনতামূলক পোস্ট দেন তিনি।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) ফকিরাপুলের ইয়ংমেন্স ক্লাবের অবৈধ ক্যাসিনোতে অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযানে নেতৃত্ব দেন র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম। সেখান থেকে ১৪২ জন নারী-পুরুষকে আটক করে র‌্যাব। অবৈধ এই ক্যাসিনোতে চালানো অভিযানে বিপুল জুয়া সামগ্রী, মাদক ও নগদ ২৪ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। পাশাপাশি ক্যাসিনো রাজা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার গুলশানের বাসায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ও মাদকসহ তাকে আটক করা হয়।

অবৈধ ক্যাসিনোতে র‌্যাবের এই অভিযানের পর তোলপাড় সৃষ্টি হয়। বের হয়ে আসতে থাকে একের পর এক অবৈধ ক্যাসিনোকে ঘিরে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। প্রশংসায় ভাসেন অবৈধ ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম।

র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ার গর্বিত সন্তান। পাকুন্দিয়া বড়বাড়ির ব্যবসায়ী বাবা বোরহান উদ্দিন এবং ‘গরবিনী মা’ মোছাম্মদ আমেনা খাতুনের একমাত্র ছেলে। ছয় ভাই-বোনের মধ্যে সবার বড় মো. সারওয়ার আলম এঁর স্কুল ও কলেজ জীবন কেটেছে কিশোরগঞ্জে। পড়েছেন কিশোরগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী গুরুদয়াল সরকারি কলেজে। এরপর ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে।

২৭তম বিসিএসের মাধ্যমে মো. সারওয়ার আলম যোগ দেন প্রশাসনে। বর্তমানে দায়িত্ব পালন করছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ফোর্সেসের আইন কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে। কমিটমেন্ট, সততা, সিরিয়াসনেস ও সিনসিয়ারিটি তাঁর সম্পদ। এসবকে পুঁজি করেই নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে প্রায়ই দুঃসাহসিক সব অভিযানের নেতৃত্ব দেন তিনি। পরোয়া করেন না কোনো হুমকি-ধমকি কিংবা গোপন কোনো আঁতাতের।

নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করার অভিযানে তাঁর অনুপ্রেরণা একটাই, সেটা হলো অনিরাপদ খাদ্য খেয়ে একটি জাতি কোনোভাবে শারীরিকভাবে ফিট থাকতে পারবে না, হবে না কোনো উন্নতি। তাই যেকোনো মূল্যে ভেজাল ঠেকানোই এখন তাঁর জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।

ভেজালবিরোধী অভিযানে বর্তমানে দেশজুড়ে আলোচিত ও প্রশংসিত এক নাম মো. সারওয়ার আলম। র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলমের কর্মদক্ষতা, সাহসিকতা ও অনবদ্য ভূমিকার স্বীকৃতিস্বরূপ গত ১২ মে তাঁর মা মোছাম্মদ আমেনা খাতুনকে দেওয়া হয়েছে ‘গরবিনী মা’ সম্মাননা। সত্যিই এমন হীরের টুকরো ছেলে জন্ম দেওয়া ক’জন মায়ের ভাগ্যেই বা জুটে!

রাজধানীতে অবৈধ ক্যাসিনোতে অভিযান পরিচালনা করে নিজেকে আরো উচ্চতায় তুলে ধরেছেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম। সোশ্যাল মিডিয়াসহ সর্বত্রই প্রশংসার জোয়ারে ভাসছেন সাহসী ও আপসহীন এই মানুষটি।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর