কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পরীক্ষার্থী নেই: পাকুন্দিয়ায় সরকারি আদেশে বন্ধ হলো মাদরাসা


 স্টাফ রিপোর্টার | ৩ জুন ২০১৮, রবিবার, ৩:২৩ | শিক্ষা  


শিক্ষার্থী না পাওয়াসহ নানা অভিযোগে সারা দেশে ২০২টি মাদরাসা বন্ধ করেছে সরকার। চলতি বছর থেকে এসব মাদরাসা আর কোন শিক্ষা কার্যক্রম চালাতে পারবে না। এসব মাদরাসায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের পার্শ্ববর্তী স্বীকৃত কোন মাদরাসায় রেজিস্ট্রেশন করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

বন্ধ হওয়া এই ২০২ মাদরাসার মধ্যে কিশোরগঞ্জ জেলায় একটি মাদরাসা রয়েছে। মাদরাসাটি হচ্ছে, পাকুন্দিয়া উপজেলার সুখিয়ায় অবস্থিত মদীনাতুল উলুম সুমাইয়া দাখিল মাদরাসা।

এ ব্যাপারে মাদরাসা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর এ কে এম সাইফুল্লাহ বলেন, এসব মাদরাসায় দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষার্থী ভর্তি বন্ধ ছিল। পাবলিক পরীক্ষা থেকে শুরু করে কোনো পরীক্ষায় তারা অংশ গ্রহণ করেনি। কেন শিক্ষার্থী নেই তার কারণ জানতে চেয়ে তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়। এরমধ্যে অনেকেই এর জবাব পর্যন্ত দেয়নি। যারা দিয়েছে তাদের জবাব সন্তোষজনক নয়। এজন্য এসব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

মাদরাসা বন্ধে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের দেয়া এ সংক্রান্ত নোটিশে বলা হয়, এসব মাদরাসা দাখিল স্তরের শিক্ষার্থীদের পার্শ্ববর্তী বা কেন্দ্রস্থিত মাদরাসায় রেজিস্ট্রেশন ব্যবস্থা করার জন্য বলা হয়।

বন্ধ করার ব্যাখ্যায় বোর্ড বলেছে, ২০১৭ ও ২০১৮ সালের দাখিল পাবলিক পরীক্ষায় কোন শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেনি। এর কারণ জানতে চেয়ে এসব মাদরাসা প্রধানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হলে অনেকেই এর জবাব দেয়নি, আর যারা জবাব দিয়েছে তাতে বোর্ড সন্তুষ্ট হতে পারেনি। এ কারণে এসব মাদরাসার অনুমতি ও একাডেমিক স্বীকৃতি বাতিলসহ অনলাইনে পাসওয়ার্ড, মাদরাসা কোড নম্বর ও ইআইআইএন নম্বর বন্ধ করে দেয়া হলো।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর