কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে ইংরেজি ভাষা চর্চা-শেখার সুযোগ কতটুকু!


 সাজন আহম্মেদ পাপন | ১৫ জানুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:২৭ | শিক্ষা  


বাংলা ভাষা আমাদের বিশ্বসভায় পরিচয় করিয়ে দিয়েছে এক অনন্য, অসাধারণ জাতি রূপে- যে জাতি মায়ের ভাষাকে মায়ের ন্যায় ভালোবেসে বুকের তাজা রক্ত রাজপথে ঢেলে দিতে ও কার্পণ্য করেনি। বর্তমানে বিশ্বায়নের যুগ। পৃথিবী আজ ‘গ্লোবাল ভিলেজ’। আমরা ‘গ্লোবাল ফ্যামিলি’র বাসিন্দা।

ইংরেজ এক অতি চালাক ও বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন জাতির নাম। পৃথিবীতে এই একটি মাত্র জাতি, যাদের কোন স্বাধীনতা দিবস নেই। এক সময় বৃটিশরা সদর্পে প্রায় অর্ধেক দুনিয়া শাসন করেছে। আজ তাদের সেদিন অবশ্য নেই।

কথিত ছিল, বৃটিশ সাম্রাজ্যে সূর্য অস্ত যায় না। তবে তাদের মেধা, বুদ্ধি, মননশীলতা, সাহিত্য, সংস্কৃতি এবং সর্বোপরি তাদের ভাষা দিয়ে আজো তারা এ পৃথিবী দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। আমাদের দেশেও এ ভাষার বহুল প্রচলন পরিলক্ষ্যিত হয়।

কিন্তু, আমাদের দেশে ইংরেজি ভাষার চর্চা কেমন হচ্ছে আজকাল?

কিশোরগঞ্জ গুরুদয়াল সরকারি কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ফেরদৌস আহমেদ সোহাগ বলেন, একজন শিক্ষার্থী সফলতার সাথে ¯œাতক উত্তীর্ণ হওয়ার পরেও ইংরেজি ভাষা ব্যবহারের সক্ষমতা অর্জন করতে পারে কি? কিছু ব্যতিক্রম বাদ দিলে এই প্রশ্নের উত্তরে আমাদের হতাশ হওয়া ছাড়া কোন উপায় নেই! ইংরেজি ভাষা শিক্ষার কোনো বিকল্প আমি দেখছি না এই বিশ্বায়নের যুগে।

গুরুদয়াল সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র মো. ফরহাদ আলী পরাণ বলেন, অনেকদিন ধরে সরকারি উদ্যোগে বিদেশী ভাষা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি বন্ধ রয়েছে। এখানে খুবই অল্প খরচে বিদেশী ভাষা শিখানো হতো। বেসরকারিভাবে ইংরেজি ভাষা শিখতে গেলে যারা অস্বচ্ছল পরিবারের তাদের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

গুরুদয়াল সরকারি কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের প্রাক্তন ছাত্র নাইম বলেন,  আমার দাদা বলতো আমাদের দেশে এন্ট্রান্স পাস করা লোক অনর্গল ইংরেজি বলতে পারতেন। এদের সাথে অনেক সময় খোদ ইংরেজরাও কুলিয়ে উঠতে পারতো না।

কিন্তু এখন হলোটা কী? আজকাল আমাদের অনেক বি.এ-এম.এ পাস করা ছেলে মেয়েরা পর্যন্ত সুন্দর করে নিজে থেকে দু’লাইন ইংরেজি বলতে কিংবা লিখতে পারেন না।

গুরুদয়াল সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক গৌতম কুমার ঘোষ বলেন, ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে লক্ষ্য করা যায় বিসিএস, ব্যাংক এবং বিভিন্ন সরকারি চাকুরীর জন্য যতটুকু শেখা প্রয়োজন ততটুকুই শিখতে চায়। তবে ক্লাসরুম হতে পারে ইংরেজি ভাষা শেখার সবচেয়ে নির্ভয় ও উত্তম স্থান।

গুরুদয়াল সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নাজমুস সাকিব বলেন, আমাদের কলেজ সহ মোট ১০টি কলেজে ইংরেজি সহ বিদেশী ভাষা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র চালু হয়েছিল। মূলত জনশক্তি রপ্তানির পরিকল্পনায় এই উদ্যোগটি ছিলো।

তিনি বলেন, ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে ইংরেজি ভাষা শিক্ষার আগ্রহের অভাব লক্ষ্য করা যায়। চাহিদা অনুযায়ী উদ্যোগ গ্রহণ করলে ভাষা শেখায় আগ্রহ দেখাবে।

গুরুদয়াল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. ইমান আলী বলেন, প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকে থাকার জন্য ইংরেজি ভাষার গুরুত্ব অপরিসীম। শিক্ষার্থীদের ইংরেজি বিষয়ে ভালো নম্বর অর্জন করা আর ব্যবহারিক ইংরেজির জ্ঞান অর্জন করা এক কথা নয়। ইংরেজি ভাষা শিক্ষার আসল উদ্দেশ্যতো জ্ঞান অর্জন করাই।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর