কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন উদ্বোধন


 স্টাফ রিপোর্টার | ১২ ডিসেম্বর ২০২০, শনিবার, ১১:১০ | স্বাস্থ্য 


হাম-রুবেলা রোগের প্রকোপ থেকে সুরক্ষার জন্য কিশোরগঞ্জে হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) সকালে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো, সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।
এ উপলক্ষে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল সম্মেলন কক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো, সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার),শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. এহসানুল হক মুকুল, ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. মো. হেলাল উদ্দিন, জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপপরিচালক আবু তাহা মো. এনামুর রহমান এবং জেলা বিএমএ সাধারণ সম্পাদক ডা. এম এ ওয়াহাব বাদল।

অনুষ্ঠানে প্রতীকী হিসেবে দুইটি শিশুকে টিকা দিয়ে জেলায় হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করা হয়।

সভাপতির বক্তৃতায় সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান জানান, জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর এবং অষ্টগ্রাম উপজেলায় শনিবার (১২ ডিসেম্বর) থেকে এই ক্যাম্পেইন শুরু করা হয়েছে। এছাড়া কিশোরগঞ্জ, ভৈরব ও বাজিতপুর উপজেলায়ও একযোগে এই ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। অন্যান্য উপজেলায় ধাপে ধাপে হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মো. মোস্তাফিজুর রহমান।

এ সময় টিকাদান সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) সিভিল সার্জন অফিসের সম্মেলন কক্ষে হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন উপলক্ষে আয়োজিত প্রেস কনফারেন্সে জানানো হয়, ক্যাম্পেইনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কিশোরগঞ্জ জেলায় ৯ মাস থেকে ১০ বছর বয়সী মোট ৮ লাখ এক হাজার ৩০৫ জন শিশুকে হাম-রুবেলার টিকা দেয়া হবে।

জেলার ৮ হাজার ২৪৯টি কেন্দ্রে স্বাস্থ্যবিভাগ ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মোট ৭ হাজার ১০৩ জন কর্মী ক্যাম্পেইন বাস্তবায়নে কাজ করবেন।

জেলার দুর্গম এলাকা বিশেষ করে হাওর এলাকায় বিশেষ কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে ক্যাম্পেইনটি বাস্তবায়ন করা হবে।

এছাড়া বাদপড়া শিশুদের টিকাদানের আওতায় আনতে মপ-আপ টিম প্রতি উপজেলায় ও পৌরসভায় ৬ দিন করে কাজ করবে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর