কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত আবৃত্তি, নরসুন্দা মুক্তমঞ্চে মন্ত্রমুগ্ধ বিপুল শ্রোতা


 স্টাফ রিপোর্টার | ২০ মার্চ ২০২১, শনিবার, ৬:৪৯ | কিশোরগঞ্জ সদর 


আবৃত্তি মানুষের কাছে এত বেশি প্রিয় হতে পারে! আবৃত্তিকে হৃদয়-মননে স্থান দিয়ে মন্ত্রমুগ্ধের মতো শোনার জন্য দীর্ঘ পাঁচ ঘন্টা বিরতিহীনভাবে বসে থাকবেন! তা উদ্যোক্তারা ভাবেনি।

গত শুক্রবার (১৯ মার্চ) বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মুক্তিযুদ্ধ এবং বাংলাদেশের বিনির্মাণের নানা কবিতার আবৃত্তি শুনতে অগণিত নারী-পুরুষ কিশোরগঞ্জ শহরের নরসুন্দা নদীর মুক্তমঞ্চে নিরবতা নিয়ে বসেছিলেন।

বিশেষ করে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা কবিতার আবৃত্তি শুনে বঙ্গবন্ধু মুজিবকে তারা নতুনভাবে অনুধাবন করেন।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিবেদিত আবৃত্তির এই আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সহযোগিতায় মুজিববর্ষ জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির ওয়ার্কিং কমিটির ব্যবস্থাপনায় জাতীয় আবৃত্তি পরিষদের সদস্য আবৃত্তি শিল্পী ম ম জুয়েলের সভাপতিত্বে আবৃত্তি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন লেখক ও স্বাস্থ্য বিভাগের সাবেক পরিচালক ডা. দীন মোহাম্মদ, লেখক ও গবেষক মু. আ লতিফ, গুরুদয়াল সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. নজরুল ইসলাম পালোয়ান এবং সমকালের সাংবাদিক সাইফুল হক মোল্লা দুলু।

অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন লেখক গাজী মুহিবুর রহমান।

প্রথমে সম্মিলিত সুরে সৈয়দ শামসুল হকের ‘আমার পরিচয়’ কবিতা আবৃত্তির মধ্য দিয়ে আবৃত্তি অনুষ্ঠানের সূচনা হয়।

পরে আবৃত্তিকার বাসিরুল আমিন, হুমায়ূন কবীর, দেলোয়ার হোসেন শামীম, সেলিম জামান, মাহবুবুর রহমান, তৌকির ইসলাম তম্ময়, জাকিয়া তাফসি রাতুল, শুভজিৎ রায় কাব্য, আন্তা রহমান, আমিনুল ইসরাম সেলিম প্রমুখ আবৃত্তি করেন।

বাংলাদেশ ও পশ্চিম বাংলার কবিদের কবিতা আবৃত্তি উপস্থাপনা করে আবৃত্তিকাররা উপস্থিত সবার চেতনাকে নাড়া দিতে সক্ষম হন।

শেষে নির্মেলেন্দু গুণের ‘হুলিয়া’ কবিতাটি ম ম জুয়েল আবৃত্তি করে অনুষ্ঠানে আবৃত্তির এক শৈল্পিকমাত্রা যোগ করেন।

উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের বেশ কয়েকজন জানান, এই অনবদ্য আবৃত্তি অনুষ্ঠান এর আগে কখনও কিশোরগঞ্জে হয়নি।

অনেকদিন মনে রাখার পাশাপাশি দর্শকশ্রোতা এবং এ প্রজন্মের তরুণরা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নতুনভাবে চিন্তা করার প্রয়াস পাবে বলেও তারা মন্তব্য করেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর