কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


মুক্তিযুদ্ধে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ইতিকথা (শেষ পর্ব)


 জাহাঙ্গীর আলম জাহান | ১২ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ৭:৫৭ | মুক্তিযুদ্ধ 


১৯৭১ সালের ২৬ নভেম্বর কিশোরগঞ্জ-হোসেনপুর সড়কের কাছে প্যারাভাঙ্গা নামক স্থানে মুক্তিবাহিনীর গ্রুপ কমান্ডার খায়রুল জাহান ও শুকুর মাহমুদের গ্রুপের সাথে হানাদার পাকিস্তান সেনাবাহিনীর একটি শ্বাসরুদ্ধকর সম্মুখযুদ্ধ সংঘটিত হয়। এ যুদ্ধে প্রবল বিক্রমে যুদ্ধ করতে করতে খায়রুল জাহান ও মো. সেলিম শাহাদৎ বরণ করেন। স্বাধীনতার পর এ দু’জন অকুতোভয় মুক্তিযোদ্ধা ‘বীরপ্রতীক’ খেতাবে ভূষিত হন।

যশোদল এলাকার যুদ্ধ: ১১ ডিসেম্বর কিশোরগঞ্জ শহরতলীর অধুনালপ্ত ন্যাশনাল সুগার মিল এলাকায় (বর্তমানে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাস) মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালিব বসু ও মুক্তিযোদ্ধা মহিউদ্দিন গ্রুপের সাথে আলবদর বাহিনীর ভয়াবহ সম্মুখযুদ্ধ সংঘটিত হয়।

এই যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা নজরুল আলম গেন্দু (করগাঁও, কটিয়াদী), বাজিতপুর থানার মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিন (গ্রাম-নিলখী) এবং ওসমান গণি (গ্রাম-কাশাল্লা, গজারিয়া) শাহাদৎ বরণ করেন।

শোলমারা এলাকার যুদ্ধ: ১১ ডিসেম্বর গ্রুপ কমান্ডার আব্দুল বারী খানের মুক্তিযোদ্ধা গ্রুপের সাথে শহরতলীর শোলমারা এলাকায় আলবদর, আলশামস, রাজাকার ও মুজাহিদ বাহিনীর সম্মুখযুদ্ধ সংঘটিত হয়। এ যুদ্ধে বাজিতপুর থানাধীন গজারিয়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন (পুলিশ সদস্য) শহিদ হন। কিশোরগঞ্জ মুক্ত করার এ সকল যুদ্ধে চূড়ান্ত বিচারে বীর মুক্তিযোদ্ধাদেরই বিজয় সূচিত হয়েছিল।

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নাম ও পরিচয়:
ক্রমিক    শহীদের নাম    পিতা        ঠিকানা    শহীদ হওয়ার স্থান
০১.    খায়রুল জাহান বীরপ্রতীক    আব্দুল হাই তালুকদার (মেন্দি মিয়া)    খড়মপট্টি কিশোরগঞ্জ    প্যারাভাঙ্গা যুদ্ধে শহিদ
০২.    সম্রাট মিয়া (সোমরাজ)    জমির উদ্দিন    বিন্নাটি    করমুলি
০৩.    জহিরুল ইসলাম ভূঞা (ছন্দু)    আবদুল খালেক ভূঞা    কালাইহাটি    রেকি করতে এসে ধৃত ও শহিদ
০৪.    তাহের উদ্দিন ভূঞা    আফসর উদ্দিন ভূঝা    বেত্রাটি, নীলগঞ্জ    তালজাঙ্গা এলাকায়
০৫.    মো. নিজাম উদ্দিন    ছমির উদ্দিন    বগাদিয়া, বিন্নগাঁও    করমুলি

০৬.    জমশেদ আলী (অব. সেনা সদস্য)    নজমউদ্দিন শেখ    কাটাবাড়িয়া    পাবনার ঈশ্বরদীতে
০৭.    শফিউদ্দিন শফি    মো. খলিল    যশোদল    জানা যায়নি
০৮.    মাইনউদ্দিন চিশতি    আবুল হাশেম    আখড়াবাজার    ধৃত হয়ে শহিদ
০৯.    সিরাজুল হক    মনসুর আলী    কুটিগির্দি    ধৃত হয়ে শহিদ

মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে স্মৃতিসৌধ/স্মৃতিফলক/স্থাপনা:
ক্রমিক    স্মৃতিসৌধ/স্মৃতিফলক/স্থাপনার নাম    যাঁর স্মৃতির উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠিত
০১    বরইতলা (শহিদনগর) স্মৃতিফলক    বরইতলার প্রায় ৩৬৫ জন শহিদের স্মরণে
০২    শহিদ খায়রুল স্মৃতি সংসদ    শহিদ খায়রুল জাহান বীরপ্রতীক স্মরণে
০৩    শহীদ খায়রুল স্মৃতি ফলক, প্যাড়াভাঙ্গা                      ঐ
০৪    শহিদ খায়রুল ছাত্রাবাস, ময়মনসিংহ কারিগরি কলেজ                       ঐ
০৫    শহিদ আতিক স্মৃতি জাদুঘর (অধুনালুপ্ত)     শহিদ আতিকুর রহমান স্মরণে

০৬    শহিদ চিশতি স্মৃতি সংসদ, আখড়াবাজার     শহিদ মাইনুদ্দিন চিশতি স্মরণে
০৭    শহিদ ইয়াকুব আলী স্মৃতি সংসদ, বৌলাই, কিশোরগঞ্জ সদর     শহিদ ইয়াকুব আলীর স্মরণে
০৮    শোলমারা স্মৃতিফলক     শোলমারা ব্রিজের শহিদ স্মরণে
০৯    শহিদ জমশেদ আলী স্মৃতি পরিষদ কাটাবাড়িয়া, কিশোরগঞ্জ সদর     শহিদ জমশেদ আলী স্মরণে
১০    শহিদ হায়দার রাইস মিল, বৌলাই     শহিদ লে. কর্নেল এটিএম হায়দার স্মরণে

১১    তাহেরগঞ্জ বাজার, নীলগঞ্জ     শহিদ তাহের উদ্দিন-এর স্মরণে
১২    তাহের উদ্দিন খেলার মাঠ, নীলগঞ্জ                      ঐ
১৩    মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি সংসদ, নিউটাউন    মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষার্থে
১৪    জয়বাংলা বাজার, রশিদাবাদ    মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষার্থে                    
১৫    জয়বাংলা বাজার, ধলিয়ারচর                      ঐ

১৬    জয়বাংলা বাজার, নলুয়া                      ঐ   
১৭    মুক্তি সরণী, বত্রিশ পৌর মহিলা কলেজ সড়ক    মুুক্তিযুদ্ধের স্মরণে                 
১৮    দৃশ্যপট’৭১, কিশোরগঞ্জ      মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গবেষণা ও সাহিত্য কেন্দ্র      
১৯    প্রজন্ম’৭১, কিশোরগঞ্জ    মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সংগঠন
২০    আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান                 ঐ

২১    বায়ান্ন-একাত্তর     সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন             
২২    বিন্নাটির মোড়ে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ    মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষার্থে
২৩    গুরুদয়াল সরকারি কলেজে স্মৃতিফলক    শহিদদের নাম খচিত ফলক
২৪    দানাপাটুলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে নির্মিত স্মৃতিসৌধ     ধুলদিয়া ব্রিজ বধ্যভূমির শহিদদের স্মরণে
২৫    হাজীপুর সিংগুয়া নদীর ত্রিমোহনায় নির্মিত স্মৃতিস্তম্ভ     অজ্ঞাত শহিদদের স্মরণে

২৬    শহীদ নজরুল ইসলাম স্টেডিয়াম    কিশোরগঞ্জ
২৭    শহীদ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ    কিশোরগঞ্জ
২৮    মুক্তিযোদ্ধা সরকার শাহাবুদ্দিন সড়ক    কটিয়াদী
২৯    শহীদ ইযাকুব আলী পাঠাগার    বৌলাই, কিশোরগঞ্জ

৩০    মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ভবন    ওয়ালীনেওয়াজ খান কলেজ, কিশোরগঞ্জ
৩১    সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম স্মৃতি মিলনায়তন    কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা কমপ্লেক্স
৩২    মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ভাস্কর্য    তাড়াইল উপজেলা সদর কমপ্লেক্স

কিশোরগঞ্জ হানাদার মুক্ত হওয়ার দিন: ১৬ ডিসেম্বর বিকেলে ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) পাকিস্তানের পক্ষে হানাদার পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রধান লে. জেনারেল আমির আব্দুল্লাহ নিয়াজী তার ৯৩ হাজার সৈন্য নিয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় অধিনায়ক ও মুক্তিবাহিনীর যৌথ কমান্ডের অধিনায়ক জগজিৎ সিং অরোরার কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ চুক্তিতে স্বাক্ষর করে পাকিস্তানের পরাজয় মেনে নেন।

অথচ নিয়াজীর দাসানুদাস কিশোরগঞ্জের রাজাকার-আলবদরেরা মিথ্যা দম্ভে তখনও কিশোরগঞ্জে তথাকথিত পাকিস্তান কায়েম রাখার ব্যর্থ চেষ্টা চালিয়ে যেতে থাকে।

অধ্যাপক জিয়াউদদীন আহমদ ও হেলাল উদ্দিন মাস্টারের মধ্যস্থতায় রাজাকার বাহিনীর মূল সংগঠক মাওলানা আতাহার আলী ও অন্যান্য শীর্ষ দালালদের সাথে দীর্ঘ আলোচনা চলে। রাত ১১টা পর্যন্ত জামিয়া ইমদাদিয়ার ভবনে এ নিয়ে অনেক জল্পনা-কল্পনা ও আলোচনা হয়। অতঃপর বাস্তবতা উপলব্ধি করে মাওলানা আতাহার আলী বিনাশর্তে আত্মসমর্পনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

সিদ্ধান্ত মোতাবেক তাৎক্ষণিকভাবে একটি জীপে মাইক সংযোগ করে শহরের চতুর্দিকে রাজাকারদের পক্ষ থেকে আত্মসমর্পণের ঘোষণা প্রচার করা হয়। রাজাকার কমান্ডার মাওলানা আব্দুর রহমান জামী (মুক্তিযুদ্ধকালীন কটিয়াদী থানার ওসি) মাইকে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে সমঝোতা হওয়ার ঘোষণাটি প্রচার করেছিল।

ঘোষণা মোতাবেক ১৭ ডিসেম্বর পাকিস্তানপন্থী সকল সহযোগী ফোর্স বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে আত্মসমর্পণ করে। বিজয়ী মুক্তিযোদ্ধা ও স্বতঃস্ফূর্ত জনতার মুহুর্মুহু জয়বাংলা ধ্বনিতে কিশোরগঞ্জের আকাশে উত্তোলিত হয় স্বাধীন বাংলাদেশের বিজয় পতাকা।

# জাহাঙ্গীর আলম জাহান, ছড়াকার, প্রাবন্ধিক, ইতিহাস-মুক্তিযুদ্ধ ও লোকসংস্কৃতির গবেষক, প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা ৪১টি।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর