কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে শিক্ষার্থীদের টিকাদান কর্মসূচি শুরু



 আফসার হোসেন তূর্জা, ভৈরব | ৮ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ১:৫৫ | ভৈরব 



কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ব্যাপক উৎসাহ- উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শুরু হলো ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী স্কুল শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকাদান কর্মসূচি। শনিবার (৮ জানুয়ারি) সকাল থেকে ভৈরবের ট্রমা সেন্টারে এ টিকাদান কর্মসূচি শুরু করা হয়।

ভৈরব সরকারি কে.বি পাইলট মডেল হাই স্কুল ও ভৈরব এম.পি পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার মাধ্যমে কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিকুর রহমান সবুজ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা. মো. খুরশীদ আলম, এমওডিসি ডা. রিয়াসাত আজীম, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার স্বপ্না ইসলাম, ভৈরব সরকারি কে.বি পাইলট মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. নুরুল ইসলাম ও ভৈরব এম.পি পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এম. এ মুহিত এবং অন্যান্য শিক্ষকমণ্ডলী ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সের টিকা প্রদান সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্যকর্মীগণ।

উদ্বোধনী দিন ভৈরবের দুইটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভৈরব সরকারি কে.বি পাইলট মডেল হাই স্কুল ও ভৈরব এম.পি পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় ৩ হাজার শিক্ষার্থী টিকা দেয়া হচ্ছে।

টিকা নেওয়া পর দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে জানায়, প্রথমে মনে কিছুটা ভয় কাজ করছিল। কিন্তু টিকা নেওয়ার পর তা চলে গেছে।

ঘাতক ব্যাধি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা পেতে এবং অন্য শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা দিতে সকল শিক্ষার্থীকে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানায় সে।

টিকাদান কর্মসূচির বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা. মো. খুরশীদ আলম জানান, ভৈরব উপজেলার বিভিন্ন স্কুল-মাদ্রাসার প্রায় ২০ হাজার শিক্ষার্থীকে কোভিড-১৯ টিকার আওতায় আনার লক্ষ্যে টিকাপ্রদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

প্রথম দিন ভৈরব সরকারি কে.বি পাইলট মডেল হাই স্কুল ও ভৈরব এম.পি পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় তিন হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে তালিকায় থাকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর