কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


এলাকাবাসীর সাথে ঈদ করতে বঙ্গভবন ছেড়ে গ্রামের বাড়িতে এমপি তৌফিক


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ৩১ জুলাই ২০২০, শুক্রবার, ৯:১৫ | বিশেষ সংবাদ 


রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের বড় ছেলে। কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের টানা তিনবারের সংসদ সদস্য। নিজের কর্মদক্ষতা আর হাওরের মানুষের প্রতি দায়বোধের মাধ্যমে পিতার যোগ্য উত্তরসূরী হিসেবে রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক হাওরের রাজনীতিতে স্বমহিমায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে চলেছেন।

হাওরের মানুষের টানে করোনা দুঃসময়ে ঝুঁকি নিয়েই এলাকাবাসীর সাথে ঈদ করতে বঙ্গভবনের আরাম-আয়েশ ছেড়ে তিনি গ্রামের বাড়ি মিঠামইন উপজেলা সদরের কামালপুরে গেছেন।

ঈদ উদযাপনের জন্য তিনি শুক্রবার (৩১ জুলাই) দুপুরে সপরিবারে মিঠামইন উপজেলা সদরের কামালপুর গ্রামের বাড়িতে পৌঁছেছেন।

পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে দলীয় নেতাকর্মী, ভক্ত, অনুসারী, সমর্থক ও শুভাকাঙ্ক্ষিসহ সর্বস্তরের মানুষের সাথে সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক ঈদের শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময় করবেন।

সংসদীয় এলাকার মানুষের সঙ্গে ঈদ উদযাপন এবং বর্ষা ও করোনা পরিস্থিতে হাওরবাসীর খোঁজখবর নিতে আগামী ৭ আগস্ট পর্যন্ত এলাকায় অবস্থান করে তিনি ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রামের বিভিন্ন গ্রাম পরিদর্শন করবেন।

হাওর অধ্যুষিত কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের টানা তিন বারের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক ১৯৬৯ সালের ২৭ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন।

ইতিহাস গড়ে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হওয়া রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এর যোগ্য উত্তরসূরী হিসেবে বেড়ে উঠা রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক ২০১৩ সালের ৩ জুলাই অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সংসদে হাওরের প্রতিনিধিত্ব করা শুরু করেন।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনের মাধ্যমে হ্যাট্রিক বিজয় লাভ করেন তিনি।

মূলত বাবার আদর্শ বুকে ধারণ করে রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিকের রাজনৈতিক যাত্রা শুরু হয়। ২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনের পর বাবার পক্ষে এলাকায় কাজ করে আলোচনায় আসেন তিনি। পরবর্তিতে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক তাঁর মার্জিত ব্যবহার ও সদালাপি আচরণ দিয়ে ক্রমেই জিতে নেন হাওরবাসীর হৃদয়।

হাওরের মানুষ আর প্রকৃতিকে ভালবেসে নিরন্তর ছুটে চলা রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক নানা জনহিতকর কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে সহজেই ঠাঁই করে নিয়েছেন হাওরের মানুষের মনের মণিকোঠায়। তরুণ এই রাজনীতিবিদই এখন হয়ে ওঠেছেন হাওরবাসীর আস্থার ঠিকানা।

রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক এমপি দ্বিতীয় বারের মতো সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া তিনি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিরও সদস্য।

সংসদ সদস্য হিসেবে রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক নিয়মিত এলাকার এলাকায় অবস্থান করে হাওরবাসীর শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও যোগাযোগসহ সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করার পাশাপাশি মানুষের দুঃখ-কষ্ট, অভাব-অভিযোগ সম্পর্কে খোঁজ রাখছেন ও তাদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন।

দেশে চীনের প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর আগে থেকেই হাওরবাসীকে সচেতন করার ব্যাপারে সচেষ্ট ছিলেন সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক।

সংসদীয় এলাকার মানুষের পাশে থেকে মোকাবেলা করছেন করোনা দুর্যোগ। করোনার দুর্যোগের মধ্যেই হাওরবাসীর একমাত্র কষ্টফসল বোরো ধান কাটায় রেখেছেন অসাধারণ অবদান। নিজে কেটে দিয়েছেন অসহায় কৃষকের ধান।

তিন উপজেলা ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রামের কৃষকসহ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর বাড়ি বাড়ি খাবার পৌঁছে দিয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন খাদ্য সহায়তা নিজে উপস্থিত থেকে বিতরণ করেছেন।

করোনার সম্মুখযোদ্ধা চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্টদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদানের পাশাপাশি করোনাজয়ী চিকিৎসক ও স্টাফদের দিয়েছেন ফুলেল সংবর্ধনা। ফলে করোনা মোকাবেলা নিয়ে হাওরের মানুষ রয়েছে যথেষ্ট স্বস্তিতে।

করোনা পরিস্থিতির ঝুঁকির মধ্যেই এবার বঙ্গভবন ছেড়ে এলাকাবাসীর সঙ্গে ঈদ করতে উদ্যমী ও মানবিক এই সংসদ সদস্য ছুটে গেছেন নিজ গ্রামে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর