কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


সাত সমুদ্র তের নদীর ওপারে ছোট্ট শিশু আয়রা’র অমর একুশে


 কিশোরগঞ্জ নিউজ ডেস্ক | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, রবিবার, ৭:১৯ | প্রবাস 



আয়রা তানজিন হক, বয়স সবে মাত্র ২ বছর ৬ মাস। ছোট্ট আয়রা, সাত সমুদ্র তের নদীর ওপারে থেকেও ভাষার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েই বড় হচ্ছে। সেখানেই এবারের অমর একুশে পালন করেছে সে।

মা মেরিনা তানজীন মিমি’র হাতের তৈরি শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ৫২ এর ভাষাসৈনিকদের আত্মত্যাগ বুকে ধারণ করে বড় হবে এমনটাই আশা পিতা আরিফুল হকের৷

আয়রা দেশের বাইরে বড় হলেও বাংলা ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি থেকে বিচ্ছিন্ন নয়, আপাদমস্তক বাঙালী মেয়ের মতোই সে বেড়ে উঠবে ও উঠছে।

পিতা আরিফুল হক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসয়ান বিভাগের লেকচারার। কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর উপজেলার দক্ষিণ কুড়িমারা গ্রামের গর্বিত সন্তান আরিফুল হক৷ উচ্চতর ডিগ্রির জন্য তিনি যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন।

এত দূরে অবস্থান করেও তিনি শহীদদের প্রতি সম্মান জানাতে ভুলেননি। মেয়ে আয়রা কে বাংলাদেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতির মাধ্যমে গড়ে তুলছেন।

একুশের চেতনা ধারণ করে পৃথিবীর নানা ভাষাভাষী মানুষের সাথে নিবিড় যোগসূত্র স্থাপিত হোক, লুপ্তপ্রায় ভাষাগুলো আপন মহিমায় নিজ-নিজ সম্প্রদায়ের মধ্যে উজ্জীবিত হোক, গড়ে উঠুক নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতির বর্ণাঢ্য বিশ্ব- শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে সেই প্রত্যাশা রেখেছেন আরিফুল হক।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সাত সমুদ্র তের নদীর ওপারে ছোট্ট শিশু আয়রা’র অমর একুশে উদযাপন দেশপ্রেম ও ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ছাড়াও এটা অন্যদের জন্য উদাহরণ হতে পারে৷


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর