কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ায় গ্রামীণ কাঁচা সড়কে জনদুর্ভোগ চরমে


 পাকুন্দিয়া সংবাদদাতা | ২১ আগস্ট ২০২১, শনিবার, ৩:০৮ | জনদুর্ভোগ 



কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের মিরারটেক হতে ভৈরাদি ভায়া দাওরাইদ পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার গ্রামীণ কাঁচা সড়কটি বেহাল ও চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় জনদুর্ভোগ চরমে উঠেছে।

হাঁটু সমান কাদা, পানি আর বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় চলাচলে ভোগান্তিতে পড়েছেন যানবাহনসহ ওই এলাকার কয়েক হাজার মানুষ।

সরজমিনে দেখা যায়, এলজিইডির অধীন গ্রামীণ এ কাঁচা সড়কে বড় বড় গর্ত, হাঁটু সমান কাদা, আবার কিছু জায়গায় রাস্তা ভেঙ্গে বিলের গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

রাস্তার কাদা পানিতে সাঁতার কেটে খাবার খাচ্ছে কতক হাঁস। গর্ত কাদায় রিকসা, অটোরিকসা, বাই-সাইকেল সহ যানবাহন পড়ে অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা।

একটু বৃষ্টি হলে একেবারেই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যায় এ সড়ক।

এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন মিরারটেক, বাহাদিয়া, ভৈরাদি, আঙিয়াদি, দাওরাইত, আদিত্যপাশাসহ আশপাশের অন্তত ৭টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ চলাচল করেস।

এলাকাটি বিলঅঞ্চল হওয়ায় কৃষিপ্রধান এলাকা হিসেবে পরিচিত। বর্ষাকালে রাস্তাটির এমন বেহাল দশার কারণে কৃষকের উৎপাদিত পণ্য ও মাছ বাজারজাতকরণে চরম দুর্ভোগে পড়েন স্থানীয় মৎস্যজীবী ও কৃষকেরা।

এ বিষয়ে মিরারটেক গ্রামের জালাল মিয়া (৪৮), আঙিয়াদি গ্রামের উত্তম হাসান শাহীন (৩১) সহ অনেকেই বলেন,  চলাচলে আমাদের দুর্ভোগের শেষ নেই। এ রাস্তা দিয়ে হাঁটলে পা দুই ফুট মাটির নিচে চলে যায়। অসুস্থ রোগিদের হাসপাতালে নেওয়াসহ কৃষিপণ্য পরিবহন দুষ্কর হয়ে পড়ে।

দুর্ভোগের কথা ভেবে রাস্তাটি দ্রুত পাকাকরণে যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন ভুক্তভোগী এলাকাবাসী।

উপজেলা এলজিইডি প্রকোশলী মো. হাবিবুল্লাহ জানান, গ্রামীণ কাঁচা রাস্তা হওয়ায় বৃষ্টির পানিতে বেহাল অবস্থা হয়ে জনদুর্ভোগ হচ্ছে। নতুন প্রকল্প পেলে সড়ক উন্নয়নে অগ্রাধিকারভিত্তিতে কাজ করা হবে।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর