কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


বাজিতপুরে নৌকার পক্ষে বতিক্রমি প্রচার, ওয়ান টু ওয়ান কাউন্সেলিং!


 স্টাফ রিপোর্টার | ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার, ১:১৬ | রাজনীতি 


‘হেরাতো তো শুধু ঘরে ঘরে না, ঘরের একজন-একজন কইরা হগল (সকল) বোটার ( ভোটার)-কে বুঝাইতাছে। আমার লগে ক্ষেতের লাইলে (জমির আইল) বইসা পাশের গ্রামের কারেন্টের কাজ করে সোহাগ ভূঁইয়া ২০ মিনিট ধইরা নৌকার আফজাল ভাইকে কেন বোট (ভোট) দিয়াম তা বুঝাইয়া গেছে। খুব  ভাল লাগতাছে।’

ষাটত্তোর বয়সী খেটে খাওয়া মানুষ শুধু রতন মিয়াকে নয়, বর্তমান এমপি আফজাল হোসেন বিগত ১০ বছরে জেলার বাজিতপুর-নিকলীতে কি ধরণের উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন এবং এবার নির্বাচিত হলে এলাকায় আগামী দিনে কি ধরণের উন্নয়ন করবেন, সেসবের ফিরিস্থি তুলে ধরছেন প্রত্যেক ভোটারের কাছে। যাকে আওয়ামী লীগ সমর্থক তরুণ ভোটাররা নাম দিয়েছেন নৌকার পক্ষে ওয়ান টু ওয়ান কাইন্সেলিং।

সরেজমিনে শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) সকালে বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুরের প্রত্যন্ত গ্রামে গ্রামে ঘুরে ভোট চাওয়ার নতুন কৌশল ওয়ান টু ওয়ান কাউন্সেলিং দেখার সুযোগ হয়েছে এ প্রতিবেদকের।

আফজাল হোসেনের অবহেলিত গ্রামাঞ্চলের শিক্ষা-স্বাস্থ্য ও রাস্তাঘাটের উন্নয়নের গতিধারায় কেউ যেন আগামী দিনে বাধাগ্রস্ত করতে না পারে সে জন্য নানা শ্রেণি-পেশার বয়োবৃদ্ধ-তরুণেরা একত্রিত হয়ে গ্রামে গ্রামে গিয়ে ‘এক জন কর্মী এক জন সাধারণ ভোটার ও ২০ মিনিটি সময়’ এই কৌশলে নৌকার প্রার্থী আফজাল হোসেনকে বিজয়ী করতে প্রচারণা চালাচ্ছেন।

কাউন্সেলিং শেষ হলে পুনরায় একত্রিত হয়ে নৌকার সমর্থনে স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে তুলেন পুরো গ্রাম। ফলে কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনে উজান-ভাটির এই সংসদীয় এলাকার গ্রাম-গঞ্জে নৌকার পালে হাওয়া লেগেছে।

স্থানীয় প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা এমরান উদ্দিন ভূঞা এংরাজ ও অধ্যক্ষ ইসমাঈল হোসেন বলেন, ৩৮ বছর পর এ আসনের আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মোঃ আফজাল হোসেন টানা দুই বারের সংসদ সদস্য। তিনি নির্বাচিত হয়ে এলাকার সার্বিক উন্নয়নে বহু জনবান্ধব কাজ করেছেন। আগামী দিনে তিনি নির্বাচিত হলে প্রত্যন্ত গ্রামের অবশিষ্ট কাচা রাস্তাঘাট, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে  কাজ করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তাই আমরা নিজ উদ্যোগে একত্রিত হয়ে তাঁর পক্ষে এই কৌশলে ভোট প্রার্থনা করছি।

কাউন্সেলিং শেষে মিছিলের মাঝে এ প্রতিবেদক কথা বলেন উন্নয়ন সংগঠক ম. মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া ও ঢাকা জজ কোর্টের এপিপি অ্যাডভোকেট মোজাম্মেল হক ভূঁইয়ার সাথে।

তাদের কাছে এ কৌশল সম্পর্কে জানতে চাইলে বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ কতটুকু এগিয়েছে এবং আগামীতে এ সরকার পুনরায় ক্ষমতায় গেলে দেশের কি ধরণের উন্নয়ন হবে, তাতে এলাকা ও সাধারণ জনগণ এবং সে কিভাবে লাভবান হবে এই বিষয়গুলো একজন কর্মী ২০ মিনিট করে বুঝায়। এ প্রক্রিয়ায় আমরা বেশ সাড়া পাচ্ছি বিশেষ করে অতি সাধারণ, তরুণ ও বয়স্ক ভোটারের কাছে। দলমত নির্বিশেষে সচেতন মানুষেরা গ্রামে গ্রামে গিয়ে ‘নৌকা’র পক্ষে প্রচারণা চালানোর এ কৌশলটি ব্যতিক্রমি-ই বটে।

গ্রামের তরুণ ভোটার সোহাগ বলেন, প্রতিটি ভোটই অত্যন্ত মূল্যবান। যারা নতুন ভোটার আছেন, তাদের প্রতি আহ্বান তারা যেন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের দল আওয়ামী লীগকে ভোট দেয়। কারণ আমরা চাই না দেশ আরও পিছিয়ে যাক।

জেলার বাজিতপুরে পৌরসভাসহ ১১টি ইউনিয়ন এবং নিকলী উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত কিশোরগঞ্জ-৫ আসন। এ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মোঃ আফজাল হোসেন (নৌকা) এবং বিএনপি থেকে শেখ মজিবুর রহমান ইকবাল (ধানের শীষ) নির্বাচনীয় প্রচারণায় মাঠে সক্রিয় রয়েছেন।

এছাড়াও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রার্থী প্রভাষক মোঃ ফরিদ আহাম্মদ (কাস্তে), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সেলিনা সুলতানা (তারা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মোঃ ইব্রাহীম (হাতপাখা), বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির খন্দকার মোছলেহ উদ্দিন (কোদাল) ও ন্যাশনাল পিপলস পাটির প্রার্থী মোঃ শাহ আলম (আম) নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।



[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর