কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে পাঁচ জয়িতাকে সংবর্ধনা



 আফসার হোসেন তূর্জা, ভৈরব | ৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১১:০৭ | নারী 



"নারী নির্যাতন বন্ধ করি, কমলা রঙ্গের বিশ্ব গড়ি" এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কিশোরগঞ্জের ভৈরবে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে জয়িতা সম্মাননা প্রদান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের আয়োজনে উপজেলা মিলনায়তনের বঙ্গবন্ধু হলরুমে এ জয়িতা সম্মাননা প্রদান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শামসুন্নাহার তাসমিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ সাদিকুর রহমান সবুজ।

উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার স্বপ্না বেগম এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. জুলহাস হোসেন সৌরভ ও উপজেলা মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগম।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান মেহের নিগার শিখা ও জয়িতা সাংবাদিক ওয়াহিদা আমিন পলি।

অনুষ্ঠানে অতিথিরা বলেন, জীবন যুদ্ধের লড়াই সংগ্রামে সফল জয়িতাদের বক্তব্যে ফুটে উঠেছে তারা কিভাবে সফল হয়েছেন। প্রতিটি নারী জীবন যুদ্ধে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা যোগান। তারাও তাদের মেধা মনন দিয়ে এগিয়ে যাওয়ায় আজ সফল।

এছাড়া বক্তারা আরও বলেন, নারীদের উন্নয়নে ভৈরব উপজেলা প্রশাসন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তাদের যে কোন উদ্যোগে উপজেলা প্রশাসন অর্থনৈতিকভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছে।

আলোচনা শেষে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ এবং বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে পাঁচ নারীকে ‘জয়িতা’ সম্মাননায় ভূষিত করা হয়।

সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় ভৈরব উপজেলার শিমুলকান্দি গ্রামের শারমীন আক্তার জুই'কে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে জয়িতা সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

এছাড়া অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জন করায় পৌর এলাকার চন্ডিবের গ্রামের লামিয়া রহমান চৈতী, শিক্ষা ও চাকুরী ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জন করায় পৌর এলাকার কালিপুর গ্রামের নূর-ই লায়লা, সফল জননী নারী হিসেবে ভৈরব উপজেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামের জাহানারা বেগম এবং নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করায় পৌর এলাকার লক্ষীপুর গ্রামের হামিদা বেগম'কে জয়িতা সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

এদিকে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয়ের উদ্যোগে ৩০ জন নারীর প্রত্যেককে ৫% হারে সুদে ১৫ হাজার টাকা করে মোট সাড়ে ৪ লাখ টাকার চেক প্রদান করা হয়।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর