কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ায় পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ব্রোকলি চাষ


 সাখাওয়াত হোসেন হৃদয় | ১০ জানুয়ারি ২০২১, রবিবার, ৫:১৪ | কৃষি 



রং ভিন্ন হলেও দেখতে যেন ফুলকপি। সবুজ রংয়ের এই সবজির পুষ্টিগুণ ফুলকপির চেয়েও বেশি। কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলায় প্রথমবারের মতো এর চাষ হয়েছে। উপজেলার আদিত্যপাশা গ্রামের আলাউদ্দিন নামের এক কৃষক এ সবজির আবাদ করেছেন।

প্রথমবারেই ফলন হয়েছে বেশ। নতুন জাতের এ সবজির কদরও রয়েছে বেশ। লোকজন উৎসাহ নিয়ে ব্রোকলি কিনছেন।

ফলন ও বাজার দর ভালো পাওয়ায় ব্রোকলি চাষে হাসি ফুটেছে কৃষক আলাউদ্দিনের মুখে। স্বল্প সময়ে অল্প খরচে অধিক লাভ পাওয়ায় উপজেলার অন্য কৃষকেরাও আগ্রহ দেখাচ্ছেন এ জাতের সবজির আবাদ করতে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এনএটিপি-২ প্রকল্পের আওতায় কৃষকদের উচ্চ মূল্যের ফসল আবাদে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। উচ্চ মূল্যের ফসল-সবজি চাষাবাদে একদিকে যেমন পুষ্টির চাহিদা মিটবে অপরদিকে কৃষকেরা অল্প খরচে বেশি লাভবান হবেন।

এরই প্রেক্ষিতে উপজেলার আঙ্গিয়াদী ব্লকের আদিত্যপাশা বাগানবাড়ি এলাকার কৃষক আলাউদ্দিনকে উচ্চ মূল্যের ব্রোকলি চাষে উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে। প্রথম বারের মতো এ সবজির চাষ করে বেশ ফলন পেয়েছেন।

বাজারে এর চাহিদা থাকায় দামও পাচ্ছেন বেশ। ব্রোকলিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও মিনারেল রয়েছে। যা ফুলকপির চেয়েও বেশি। এই সবজিটিতে পানি বেশি থাকায় শীতে শরীরের জন্যও বেশ উপকারী।

ব্রোকলি চাষি উপজেলার আদিত্যপাশা গ্রামের মো. আলাউদ্দিন জানান, কৃষি বিভাগের পরামর্শে প্রথমবারের মতো এক বিঘা জমিতে ব্রকোলির চাষ করেছেন। দুই মাস ১০দিন সময়ে ব্রোকলি পরিপক্ক হয়েছে।

পুরো জমিতে প্রায় ৪ হাজার গাছ রয়েছে। এতে তার খরচ হয়েছে প্রায় ৪০ হাজার টাকা। এরই মধ্যে বিক্রয়ও শুরু করেছেন।

প্রতিটি ব্রোকলি পাইকারি দরে ২৫ থেকে ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এতে তিনি লাভবান হবেন বলে জানিয়েছেন।

পাকুন্দিয়া পৌরসদর বাজারের খুচরা সবজি বিক্রেতা মো. আবদুল কদ্দুছ বলেন, বাজারে প্রথম এ জাতের সবজি আনা হয়েছে। দেখতে অনেকটা ফুলকপির মতো হওয়ায় ক্রেতারা উৎসাহ নিয়ে এটি দেখছেন। অনেকে আবার কিনছেনও। প্রতি পিস ব্রোকলি বিক্রি হচ্ছে ৩৫-৪০ টাকা দরে।

আঙ্গিয়াদী ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ হামিমুল হক সোহাগ বলেন, ব্রোকলি এই এলাকায় নতুন চাষ হলেও ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। ব্রোকলি চাষ করে কৃষক বেশ লাভবান হবেন। কৃষি বিভাগ থেকে কৃষককে নিয়মিত পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. সাইফুল হাসান আলামিন কিশোরগঞ্জ নিউজকে জানান, এনএটিপি-২প্রকল্পের আওতায় উপজেলার বিভিন্ন ধরণের ফসলের উচ্চমূল্যের প্রদর্শনী বাস্তবায়িত হয়েছে। তার মধ্যে আদিত্যপাশা বাগানবাড়ি সিআইজির উচ্চমূল্যের প্রদর্শনীতে ব্রোকলি চাষ করা হয়েছে।

মো. সাইফুল হাসান আলামিন বলেন, আগামিতে এ উপজেলায় ব্রোকলি চাষ আরও সম্প্রসারিত হবে বলে মনে করছি।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর