কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


সোস্যাল মিডিয়া দাপিয়ে বেড়াচ্ছে কিশোরগঞ্জের হিমেল


 স্টাফ রিপোর্টার | ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১১:৫২ | তথ্য প্রযুক্তি 



ফেসবুক এবং ইউটিউবে টেক রিলেটেড ভিডিও টিউটিরিয়াল, টেক নিউজ আন-বক্সিং এবং গেজেট রিভিউ করে সারাদেশে আলোচনায় আছেন কিশোরগঞ্জের সন্তান হিমেল। তার চ্যানেল এবং পেইজের নাম AFR Technology.

ইউটিউবে তাঁর বর্তমান সাবস্ক্রাইবার ৫ লক্ষ ২০ হাজার প্লাস। আর ফেসবুক পেইজে তার ফলোয়ার ৭ লক্ষেরও বেশি।

মূলত তার ইউটিউব চ্যানেলের যাত্রা শুরু হয় ১ আগস্ট ২০১৯। প্রথম ভিডিও আপলোড দেয়ার প্রায় এক বৎসরের মাথায় তার চ্যানেল ১ লক্ষ সাবস্ক্রাইবার অর্জন করে। যার ফলে ইউটিউব তাকে সিলভার প্লে বাটান পাঠায়।

তারপর আর তাঁকে পেছনে ফেরে তাকাতে হয়নি। একের পর এক ভিডিও ইউটিউবে ভাইরাল হতে থাকে। বর্তমানে তিনি দেশের শীর্ষ ১০ টেক টিউভারদের একজন।

i-phone,Realme, Xiaomi, Samsung, Walton, Symphony, Tecno, oppo, vivo সহ দেশের শীর্ষ ব্রান্ডগুলোর রিভিউ করে থাকেন।

এছাড়া সম্প্রতিক সময়ে টেক জগতের নিত্য-নতুন খবর নিয়ে নিয়মিত টেক নিউজও করে থাকেন AFR Technology চ্যানেলে।

ইউটিউব চ্যানেলের যাত্রা শুরু করার ১ বৎসর পর যাত্রা শুরু হয় AFR Technology নামে ফেসবুক পেইজের। আর এখানে তিনি একই ধরনের ভিডিও আপলোড করতে থাকেন। ভাল কনটেন্ট আর সাবলীল উপস্থাপনায় রাতারাতি জনপ্রিয় পায় ফেসবুক পেইজটিও।

তিনি তাঁর টিউটরিয়ালের মাধ্যমে স্মার্টফোনসহ বিভিন্ন গেজেটের সঠিক ব্যবহার বিধি সাধারণ মানুষদের মাঝে তুলে ধরেন। যা সকল শ্রেণির লোকদের মনে দ্রুত জায়গা করে নেয়।

কিশোরগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার রশিদাবাদ ইউনিয়নের ভাটগাঁও গ্রামে হিমেলের জন্ম। তাঁর শিক্ষা জীবন শুরু হয় ব্রাহ্মণ কচুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

পরবর্তীতে তিনি জিয়া উদ্দিন মাধ্যমিক স্কুল থেকে নিম্ন মাধ্যমিক, মুশুল্লী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ থেকে মাধ্যমিক, গুরুদয়াল সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ও অর্নাস (রাষ্ট্রবিজ্ঞান) শেষ করে ঢাকা কলেজ থেকে মাস্টার্স (রাষ্ট্রবিজ্ঞান) শেষ করেন।

বর্তমানে তিনি ঢাকায় একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করছেন।চাকুরির পাশাপাশি তিনি ফেসবুক এবং ইউটিউবের জন্য কনটেন্ট তৈরি করছেন।

আইটি রিলেটেড পড়াশোনা না করেও কিভাবে তিনি আইটি রিলেটেট কনটেন্ট বানাচ্ছেন এ বিষয়ে তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “আমার আগে থেকেই আইটির প্রতি এক ধরণের ভাললাগা কাজ করত, সেই থেকে আমি যতক্ষণ কম্পিউটার বা মোবাইল ব্যবহার করতাম ততক্ষণই কিছু না কিছু জানার চেষ্টা করতাম।

গেইম খেলে বা মুভি দেখে সময় নষ্ট করতাম না। কখনও ফটোশপ, কখনও ভিডিও এডিটিং আবার কখনও ওয়েব সাইট তৈরি করার চেষ্টা করতাম। আর এটা করতে আমাকে সবসময় ইন্টারনেটের সহযোগিতা নিতে হতো। গুগলে সার্চ করে সবকিছু জানা বা বুঝার চেষ্টা করতাম।”

তার্ ইচ্ছা টেকনোলজি রিলেটেড এই জ্ঞানটা সাধারণ মানুষের মাঝে পোঁছে দেওয়া। যাতে সাধারণ মানুষের হাতে থাকা টেকনোলজির সঠিক ব্যবহার করে জীবনকে আরোও সহজ করে তুলতে পারে।

সাধারণ মানুষদের প্রতিক্রিয়া জানা যায় তার ফেসবুক পেইজ এবং ইউটিউব চ্যানেলের কমেন্ট পড়ে। যেখানে প্রতিটি ভিউয়ারের পঞ্চমুখ প্রশংসায় ভাসতে থাকে ভিডিওর কমেন্টগুলো।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর